অল্পের জন্য বেঁচে গেলেন লিটন দাসের স্ত্রী

ডেস্ক রিপোর্ট: বাসার রান্না করতে গিয়ে সিলিন্ডার বিস্ফোরণে জাতীয় দলের ক্রিকেটার লিটন দাসের স্ত্রী সঞ্চিতা গুরুতর আহত হয়েছেন। যদিও অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গেছেন তিনি।

মাঠে খেলা নেই, করোনা সংক্রমণ প্রতিহতের লক্ষ্যে পুরোপুরি বাসাতেই অবস্থান অন্য ক্রিকেটারদের মত লিটনেরও। সঙ্গী তার স্ত্রী দেবশ্রী বিশ্বাস সঞ্চিতা। গত শুক্রবার চা বানাতে গিয়েই দুর্ঘটনা ঘটে।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, সিলিন্ডার সংযোগে ছিদ্র থেকে বিস্ফোরণের সৃষ্টি। এমন ভয়াবহ পরিস্থিতিতে মুখের সামনের অংশ বাঁচাতে গিয়ে হাতের কিছু অংশ পুড়ে যায়, অন্যদিকে চুলের বেশিরভাগ অংশেও আগুন লাগে। গতকাল নিজের ফেসবুক পোস্টে ঘটনার উল্লেখ করেন সঞ্চিতা।

মৃত্যুকে খুব কাছ থেকে দেখা সঞ্চিতা লিখেন, আমি আমার অনুভূতি প্রকাশ করতে পারবো না। আর সেটা আমার পক্ষে ভালো ও সহজ হবে না। কারণ মৃত্যুর খুব কাছ থেকে ফিরে এসেছি। আমি হাত দিয়ে মুখ না ঢাকলে হয়তো পুরো মুখই পুড়ে যেত। এখন আমার চুলগুলো কাটতে হবে (পুড়ে যাওয়ায়)। এটা খুবই বিরক্তিকর, কিন্তু আমি সুস্থ হয়ে ফিরতে পারবো। যদি মুখে আগুন লেগে যেত জানিনা কি হত। সুতরাং সবাই সাবধান।

করোনাভাইরাসের প্রভাবে দেশের করুণ অবস্থায় দেখে দুস্থদের সাহায্যে হাত বাড়িয়ে ক’দিন আগেই খবরের শিরোনাম হয়েছিলেন জাতীয় দলের ক্রিকেটার লিটন দাস ও তার স্ত্রী সঞ্চিতা। এই কঠিন পরিস্থিতিতেই দুর্ঘটনার শিকার হয়েছেন লিটনের সদ্য বিবাহিত স্ত্রী।

স্বাআলো/এসএ/কে