বিছানায় স্ত্রী ও মেয়ের লাশ, স্বামী ঝুলছে ঘরের আড়ায়

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা: গাজীপুরে একই ঘর থেকে স্বামী-স্ত্রী ও মেয়ের লাশ উদ্ধার হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে সিটি করপোরেশনের কাশিমপুর থানার পানিশাইল  থেকে লাশ তিনটি উদ্ধার করে পুলিশ। সোমবার রাতের কোনো এক সময় ঘটনাটি ঘটেছে বলে মনে করছে পুলিশ।

উদ্ধারকৃত তিনজন হলেন, পানিশাইলের মোশারফ হোসেন (২৮), তার স্ত্রী হোসনে আরা (২২) এবং তাদের মেয়ে মোহিনী (২ মাস)। মোশারফের বাড়ি রংপুরের পীরগাছা উপজেলার ফকিরতরি গ্রামে। তিনি পরিবার নিয়ে পানিশাইলে ওই বাসায় ভাড়া থাকতেন। সেখান থেকেই লাশ তিনটি উদ্ধার হয়েছে।

বাড়ির তত্ত্বাবধায়ক কবির হোসেন বলেন, পানিশাইলের এই বাড়িটির মালিক সাদেক আলীর নামের এক ব্যক্তি। ওই বাসায় পরিবার নিয়ে ভাড়া থাকতেন মোশারফ হোসেন। প্রতিদিনের মতো সোমবার রাতে তারা ঘুমিয়ে পড়েন। মঙ্গলবার সকালে তাদের ঘরের দরজা খুলতে দেরি হচ্ছিল। এ অবস্থায় বাসার অন্য লোকজন তাদের ডাকাডাকি করেন। কিন্তু ঘরের ভেতর থেকে তাদের কোনো সাড়াশব্দ পাওয়া যায়নি। এ সময় ঘরের ভেতর থেকে বিষের গন্ধ বের হচ্ছিল।

পরে স্থানীয় লোকজন বিষয়টি ফোন করে থানা-পুলিশকে অবহিত করে। খবর পেয়ে কাশিমপুর থানা থেকে একদল পুলিশ সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ঘটনাস্থলে পৌঁছায়।

কাশিমপুর থানার ওসি আকবর আলী খান বলেন, ঘরের ভেতরে আড়ার সঙ্গে গলায় কাপড় প্যাঁচানো মোশারফ হোসেনের ঝুলন্ত লাশ পাওয়া যায়। নিচে বিছানায় পড়ে ছিল তার স্ত্রী হোসনে আরা ও মেয়ে মোহিনীর লাশ।

ময়নাতদন্তের জন্য লাশ গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে জানিয়ে ওসি বলেন, কোনো কারণে মোশারফ তার স্ত্রী ও মেয়েকে বিষ খাইয়ে হত্যা করে নিজে আত্মহত্যা করে থাকতে পারেন বলে ধারণা করছেন তারা। পুরো বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

স্বাআলো/এসএ/কে