সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতে মাঠে ছাত্রলীগ

চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি: বারবার সরকারি ঘোষণার পরও শহরের কিছু ব্যবসায়ী বুঝতেই চাচ্ছেন না। তারা প্রশাসনের ভয়ে দোকান খোলা রাখতে না পারলেও দোকানের সার্টার হাফ খোলা রেখেই বেচাকেনা করছেন। কেউ আবার দোকানের সার্টারের তালা খুলে রেখে পাশেই থাকছেন। ফলে শহরে গেলে সবই পাওয়া যাচ্ছে এমন ভেবে সকাল থেকেই গ্রাম থেকে মানুষ আসছে চৌগাছা উপজেলা শহরে। আর এতে বিঘ্নিত হচ্ছে সামাজিক দূরত্ব। ফলে বাড়ছে করোনা ভাইরাস সংক্রমনের আশংকা। চৌগাছা শহরের মানুষ হচ্ছেন আতংকিত।

মানুষের এ আতংক দূর করতে ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে প্রশাসনের পাশাপাশি মাঠে নেমেছে চৌগাছা উপজেলা ছাত্রলীগ। সাধারণ ছুটির প্রথমদিনগুলিতে তারা উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম, গ্রামের বাজারে ও মোড়ে মোড়ে করোনা ভাইরাস সতর্কতায় প্রচারপত্র বিলি করেছেন। বিলি করেছেন মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার।

মঙ্গলবার সকাল থেকে তারা করোনা ভাইরাস সংক্রমন রোধে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতে চৌগাছা শহরের বিভিন্ন মার্কেটের ব্যবসায়ীদের বুঝিয়ে বাড়ি পাঠাচ্ছেন। বুধবারও সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত তারা এই কর্মসূচি পালন করেছেন। চৌগাছা শহরের বিভিন্ন সড়ক ও বিভিন্ন মার্কেটের দোকানিদের বুঝিয়ে বাড়ি পাঠাতে তারা সড়কগুলিতে মহড়াও দিচ্ছেন।

উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইব্রাহিম হোসেন, সাধারণ সম্পাদক বিএম শফিকুজ্জামান রাজু, সাংগঠনিক সম্পাদক রাজু আহাম্মেদ, দপ্তর সম্পাদক হাশেম আলী, সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি আশিকুজ্জামান রিংকু, সম্পাদক মিকাইল ইসলাম, ছাত্রলীগ নেতা হাসান রেজা ও পৌর ছাত্রলীগ নেতা সৌরভ রহমান বিপুল, মিনহাজুর রহমান জিসাদ প্রমুখের নেতৃত্বে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ও ইউনিট ছাত্রলীগের সভাপতি সম্পাদকরা এই কর্মসূচিতে অংশ নিচ্ছেন।

এবিষয়ে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক বিএম শফিকুজ্জামান রাজু বলেন, সাধারণ মানুষকে বুঝিয়ে ঘরে রাখার জন্য আমরা প্রচারপত্র বিলি করেছি, মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করেছি। সাধারণ মানুষকে বুঝিয়ে ঘরে রাখার জন্য আমরা বিভিন্ন গ্রামে গ্রামে গিয়ে মানুষকে বুঝাচ্ছি। এরই অংশ হিসেবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে মহড়া আকারে শহরের ব্যবসায়ী, ক্রেতা, ছোট-বড় বিভিন্ন শ্রেণির যানবাহনের চালক ও সহকারীদের ঘরে থাকতে উদ্বুদ্ধ করতে মাঠে নেমেছি। সরকারের সাধারণ ছুটির আগামী দিন গুলিতেও আমরা এভাবে মানুষকে সচেতন করতে মাঠেই থাকবো।

স্বাআলো/ডিএম