জয়পুরহাটে জ্বর-সর্দি নিয়ে বগুড়ার ডাল কারখানার শ্রমিকের মৃত্যু

জেলা প্রতিনিধি, জয়পুরহাট: জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার পৌলুঞ্জ বর্মণপাড়া গ্রামে করোনাভাইরাসের লক্ষণ নিয়ে নির্দোষ চন্দ্র (২১) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় ওই যুবকের বাড়িসহ আশপাশের ১০টি বাড়ি লকডাউন করেছে স্থানীয় প্রশাসন। করোনা পরীক্ষার জন্য তার নমুনা সংগ্রহ করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়েছে।

আলমপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ারুজ্জামান তালুকদার জানান, নিদোর্ষ চন্দ্র বগুড়া শহরের একটি ডাল প্রস্তুতের কারখানায় শ্রমিকের কাজ করতেন। কারখানায় তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে ওই কারখানার লোকজন বুধবার রাতে তাকে নিজ বাড়িতে রেখে যান। বৃহস্পতিবার দুপুরে তাকে সিএনজিযোগে বগুড়ায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

ক্ষেতলাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরাফাত রহমান বলেন, ওই যুবকের মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর তার বাড়িসহ ১০টি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে।

জয়পুরহাটের সিভিল সার্জন ডা. সেলিম মিঞা জানান, করোনা পরীক্ষার জন্য তার মরদেহ থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। করোনায় তার মৃত্যু হয়েছে কি-না তা রিপোর্ট আসার পর নিশ্চিত হওয়া যাবে।

স্বাআলো/ডিএম

অপরদিকে জেলার কালাই উপজেলার কাদিরপুর গ্রামের এক দম্পতি নারায়ণগঞ্জ থেকে আসায় তাদের হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলে জানান কালাই থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফ খান। এ ছাড়া স্থানীয়রা নিজ উদ্যোগে গ্রামটিকে লকডাউন করে রেখেছেন বলে জানান ওসি।