কার্গোতে নারী ও শিশুসহ ৩৮ ভাটা শ্রমিক অতঃপর…

চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি: ময়মনসিংহের ত্রিশাল থেকে আজমীরী ট্রান্সপোর্টের একটি কার্গো ট্রাকে করে সাতক্ষীরার শ্যামনগরে যাচ্ছিলেন ত্রিশালের বালিপাড়া ইউনিয়নের একটি ইটভাটার তিন নারী ও দুই শিশুসহ ৩৮ শ্রমিক। যশোর শহরে ঢুকতে না পারায় বাইপাস ধরে চৌগাছা শহর দিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে কার্গোটির চালক মিলন।

শনিবার সকাল সাতটার দিকে চৌগাছা শহরে পৌছালে কার্গোর মধ্যে থাকা একজন মানুষের কথার শব্দে ও কার্গোটির পেছনদিক সামান্য খোলা থাকায় বাজার ব্যবসায়ী সমিতির যুগ্ম-সম্পাদক আজিজুর রহমান এ্যাডমিরালের নেতৃত্বে কয়েকজন যুবক সেটি আটক করে। আটকের পর কার্গোর মধ্য ঠাসাঠাসি করা ৩৮ জন মানুষ দেখে স্থানীয়রা মারমুখি হয়ে ওঠে।

পরে চৌগাছা পৌরসভার মেয়র নূর উদ্দিন আল মামুন হিমেল ও চৌগাছা থানার এসআই নজরুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়। মেয়র হিমেল শ্যামনগরের কাশিবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ এবং ত্রিশালের বালিপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ বাদলের সাথে কথা বলেন। কথা বলার পর শ্রমিকরা ময়মনসিংহ থেকে আসছেন এবং শ্যমনগর যাবেন এটা নিশ্চিত হয়ে চৌগাছার ইউএনও এবং ওসির সাথে পরামর্শ করে ওই শ্রমিকদের তাদের গ্রামে পাঠানো নিশ্চিত করেন। পরে বেলা ১০ টার দিকে তিনিসহ পুলিশ শ্রমিক বোঝাই ওই কার্গোটিকে চৌগাছার সীমানা পার করে দিয়ে আসেন।

কার্গোতে থাকা শ্রমিকদের সর্দার আরিফুল ইসলামসহ তারা ছয়ভাই রয়েছেন এই কার্গোতে। তাদের বাড়ি ওই ইউনিয়নের জয়রামপুর গ্রামে।

তিনি বলেন, আমরা ত্রিশালের বালিপাড়া থেকে শুক্রবার রাতে নারী ও শিশুসহ ৩৮ শ্রমিক সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার কাশিবাড়ি ইউনিয়নের বিভন্ন গ্রামে যাচ্ছিলাম। দশদিন আগে আমাদের ভাটা মালিক ভাটা বন্ধ করে দিয়েছেন। প্রায় সাত দিন ধরে আমরা না খেয়ে জীবনযাপন করছিলাম। অতপর ভাটা মালিকের পরামর্শে এই কার্গোতে করে বাড়ি যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিই।

চৌগাছা পৌর মেয়র নূর উদ্দিন আল মামুন হিমেল বলেন, তারা ময়মনসিংহের ত্রিশালের বালিপাড়া ইউনিয়নের একটি ইটভাটা শ্রমিক। শুক্রবার রাতে একটি কার্গোতে করে সাতক্ষীরার শ্যমনগর উপজেলার কাশিবাড়ি ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে যাচ্ছিল। কাশিবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ এবং ত্রিশালের বালিপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ বাদলের সাথে আমি কথা বলেছি। ওরা যেন নিজেদর বাড়িতে পৌঁছতে পারে। ইউএনও জাহিদুল ইসলাম, থানার ওসি রিফাত খান রাজীবের সাথে কথা বলে সে ব্যবস্থা করা হয়েছে।

চৌগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদুল ইসলাম ও চৌগাছা থানার ওসি রিফাত খান রাজীব বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

স্বাআলো/ডিএম