খড়ের গাদায় লুকিয়েও রক্ষা পেলেন না ইউপি সদস্য

জেলা প্রতিনিধি, সিরাজগঞ্জ: গ্রামবাসীদের ভয়ে খড়ের গাদায় চাল লুকিয়েও রক্ষা পেলেন না এক নারী ইউপি সদস্য। জানা গেছে, সিরাজগঞ্জের তাড়াশের মাধাইনগর ইউনিয়নে বুধবার ভিজিডির কার্ডধারীদের মাঝে জনপ্রতি ৩০ কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়।

আর ওই ইউনিয়ন পরিষদের নারী ইউপি সদস্য দুলু খাতুন তার স্বামী আব্দুর রহমান ও ছেলে আরিফুল ইসলাম নামের কার্ডধারী দুজনের ভিজিডির চাল তুলে নিয়ে দিনশেষে গুড়মা গ্রামের নিজ বাড়িতে নিয়ে যাচ্ছিলেন।

এ সময় গ্রামবাসী ওই চাল দেখে কানাঘুষা করতে থাকেন যে ইউপি সদস্য দুলু খাতুন চালগুলো আত্মসাতের উদ্দেশ্যে বাড়িতে নিচ্ছেন।

বিষয়টি এক কান দুই কান করে ইউপি সদস্য দুলু খাতুনের কাছেও চাল চুরির বিষয়টি পৌঁছে যায়। এতে ওই নারী ইউপি সদস্য ঘাবড়ে গিয়ে ওই দুই বস্তা চাল বাড়ির সামনে খড়ের গাদায় লুকিয়ে রাখেন।

পরে অতি উৎসাহী কতিপয় ব্যক্তি বিষয়টি গোপনে দেখে স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের জানান। গণমাধ্যমকর্মীরা আবার বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনকে জানায়।

এদিকে খড়ের গাদায় চালের বস্তা লুকিয়ে রাখার খবর পেয়ে পুলিশ নিয়ে সেখানে হাজির হন তাড়াশ সহকারী কমিশনার (ভূমি) ওবায়দুল্লা।

পরে তিনি ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে ইউপি সদস্য চালের বিষয়টির বিস্তারিত জানান। মূলতঃ তিনি ভয়েই এ কাজটি করেছিলেন বলে স্বীকার করেন।

মাধাইনগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবু হাসান মির্জা বলেন, নারী ইউপি সদস্যের পরিবারটি দরিদ্র। আর তার স্বামী ও ছেলের নামে দুটি ভিজিডির কার্ড রয়েছে। সেই কার্ডের অনুকূলে ওই নারী ইউপি সদস্য দুলু খাতুন বিতরণকৃত চাল বৈধভাবে তুলে নিয়ে বাড়িতে যান। কিন্তু কতিপয় অতি উৎসাহী গ্রামবাসীর কারণে ভয়ে চালগুলো খড়ের গাদায় লুকিয়ে রাখে।

অবশ্য তাড়াশ সহকারী কমিশনার (ভূমি) ওবায়দুল্লাহ আরো জানান, ভিজিডির দুজন কার্ডধারীর ওই চালগুলো বৈধ ছিল।

স্বাআলো/এসএ