গোপনে মাংস বিক্রেতার লাশ দাফন, তিনদিন পর করোনা শনাক্ত

জেলা প্রতিনিধি, মাদারীপুর: মাদারীপুরের শিবচরের উমেদপুরে গোপনে করোনা আক্রান্ত এক মাংস বিক্রেতার লাশের জানাজা ও দাফন সম্পন্ন হয়েছে। ওই ব্যক্তি ঢাকার জুরাইনে কসাইয়ের কাজ করতেন।

বৃহস্পতিবার ওই ব্যক্তির করোনা শনাক্তর খবর জানতে পারেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আসাদুজ্জামান। এরপর দুপুরে প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, স্বাস্থ্য কর্মকর্তা, আওয়ামী লীগ নেতা, জনপ্রতিনিধিরা গিয়ে ওই বাড়িসহ সংস্পর্শে আসা ২৫টি বাড়িকে লকডাউন করেছেন। ওই ব্যক্তির মেয়েও জ্বর-ঠাণ্ডায় ভুগছেন বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, গত ২৭ এপ্রিল করোনা উপসর্গ নিয়ে ঢাকার জুরাইনে ওই মাংস বিক্রেতার (৫৯) মৃত্যুবরণ করেন। ঢাকার মিডফোর্ড হাসপাতালে নেয়ার পর তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। রাতেই ওই মাংস বিক্রেতাকে শিবচরের উমেদপুরে নিজ বাড়িতে আনা হয়। নমুনা সংগ্রহের বিষয়টি গোপন রেখে তড়িঘড়ি করে জানাজা শেষে তার দাফন সম্পন্ন। জানাজা ও দাফনে স্বজনরাসহ এলাকাবাসী অংশ নেয়।

ওই ব্যক্তির এক স্বজন বলেন, চাচা মারা যাওয়ার পর চাচাতো বোনও গলা ব্যথা ও ঠাণ্ডায় ভুগছে। আমাদের পরিবারের একজন আজ ঢাকায় মারা গেছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা ডা. শশাঙ্ক চন্দ্র ঘোষ বলেন, যে মারা গেছেন তার অসুস্থ মেয়ের নমুনা আগামীকাল পরীক্ষা করা হবে। এভাবে গোপন রাখলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখা খুবই কঠিন হবে।

ইউএনও আসাদুজ্জামান বলেন, ঢাকার ওই ব্যক্তির জানাজা ও দাফন গোপনীয়তার সাথে খুব তরিঘড়ি করে সম্পন্ন করা হয়েছে। আমরা করোনা পজিটিভ নিশ্চিত হওয়ার পর ২৫টি বাড়ি লকডাউন করেছি। ওই বাড়িসহ এলাকায় লাল ফ্লাগ টানিয়ে দেয়া হয়েছে।

স্বাআলো/এসএ