বাসা-দোকানের ২ মাসের ভাড়া মওকুফ করলেন যুবলীগ নেতা

ডেস্ক রিপোর্ট: করোনাভাইরাসের প্রভাবে স্থবির হয়ে পড়েছে জনজীবন। কর্ম হারিয়ে মানবেতর দিন কাটাচ্ছেন বহু মানুষ। এসব বিবেচনা করে বাসা ও দোকান ভাড়াটিয়াদের ভাড়া মওকুফ করে দিয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহসিন খন্দকার। পাশাপাশি তিনি সদর উপজেলার সুহিলপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৮নং ওয়র্ডের সদস্য।

নিজের দুটি ফ্ল্যাট বাসা ও আটটি দোকানের এপ্রিল ও মে মাসের ভাড়া মওকুফ করেছেন তিনি। ভাড়া মওকুফের পাশাপাশি ভাড়াটিয়াদের পাশে থেকে তাদের সব ধরনের সহযোগিতারও আশ্বাস দিয়েছেন মহসিন।

সদর উপজেলার ঘাটুরা এলাকায় তার দুইতলা বিশিষ্ট বাড়িতে দুইজন ভাড়াটিয়ার দুই মাসের ভাড়া ও বাড়ির পাশে খন্দকার মার্কেটে থাকা আটটি দোকানের দুই মাসের ভাড়া ৮০ হাজার টাকা মওকুফ করে দিয়েছেন। ভাড়া মওকুফ ছাড়াও ইতোপূর্বে কর্মহীন ও হতদরিদ্রদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছেন মহসিন ও তার সহধর্মীণি শামীমা মহসিন।

এবার বাসা ও দোকান ভাড়া মওকুফ করে চলমান দুর্যোগময় পরিস্থিতিতে ভাড়াটিয়াদের পাশে থাকার জন্য অন্য মালিকদের প্রতিও অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

মহসিনের মালিকানাধীন খন্দকার মার্কেটের ভাড়াটিয়া সাজু হাজারী জানান, চলমান পরিস্থিতির কারণে দোকান মালিক মহসিন আমাদের এপ্রিল ও মে মাসের ভাড়া মওকুফ করে দিয়েছেন। উনি বলেছেন বর্তমান অবস্থার পরিবর্তন না হওয়া পর্যন্ত আমাদের পাশে থাকবেন। আমাদের কোনো সহযোগিতা প্রয়োজন হলে তিনি সহযোগিতা করবেন বলেও জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সুহিলপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মহসিন খন্দকার বলেন, করোনাভাইরাসের এই মহাদুর্যোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আমাদের দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি নির্দেশনা দিয়েছেন। সেই অনুযায়ী আমাদের সদর আসনের সংসদ সদস্য র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর দিকনির্দেশনায় ব্যক্তি উদ্যোগে দুইবার কর্মহীন ও হতদরিদ্রদের ত্রাণ সহায়তা দিয়েছি।

তিনি আরো বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে যেহেতু বাসা থেকে কেউ বের হয়ে কর্মস্থলে যেতে পারছেন না এবং ব্যবসা-বাণিজ্য সবকিছু বন্ধ রয়েছে সেজন্য আমি দুই মাসের বাসা ও দোকান ভাড়া মওকুফ করে দিয়েছি।

পরিস্থিতির পরিবর্তন না হওয়া পর্যন্ত আমি আমার ভাড়াটিয়াদের পাশে থেকে তাদের সব ধরনের সহযোগিতা করব।

স্বাআলো/এসএ