করোনা ঝুঁকিতে যশোর শিক্ষা বোর্ডের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক, যশোর: করোনার বিপদজনক জোন থেকে ফিরেই যশোর শিক্ষা বোর্ডে অফিস করছেন এক অফিসারসহ দুইজন। স্বাস্থ্য বিধি অনুযায়ী হোম কোয়ারেন্টাইন না মেনে তাদের এভাবে অফিস করায় চরম ঝুঁকির মধ্যে পড়েছেন এখানকার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

জানা যায়, গত ২৬ মার্চ সরকার সারাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করলে বন্ধ হয়ে যায় যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড। এর পরেই নিজ বাড়ি ঢাকার মিরপুরে চলে যান বোর্ডটির সিনিয়র সিস্টেম এনালিস্ট জাহাঙ্গীর কবীর। ইতিমধ্যে করোনা রোগী শনাক্তের সংখ্যা বিবেচনায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে ঢাকার মিরপুরকে বিপদজনক জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এমন বিপদজনক স্থানে প্রায় দুই সপ্তাহ অবস্থান করার পর জাহাঙ্গীর কবীর গত ৯ মে যশোরে আসেন। পরদিন থেকেই তিনি নিয়মিত অফিস করছেন।
এছাড়া শিক্ষা বোর্ডের ডাটা এন্ট্রি অপারেটর শেখ সফিউদ্দিন গত ৬ মে ঢাকায় যান। আর ১১ তারিখে যশোরে এসে ১২ তারিখ থেকে যথারীতি অফিস করছেন।
এই দুইজন ঢাকার মতো বিপজ্জনক এলাকা থেকে ফিরেই অফিস করছেন। স্বাস্থ্য বিধি অনুযায়ী তারা হোম কোয়ারেন্টাইন না মানায় বোর্ডের শতশত কর্মকর্তা-কর্মচারী করোনা ঝুঁকির মধ্যে পড়েছেন। এই নিয়ে বোর্ডটির অভ্যন্তরে এক ধরনের আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।
এ ব্যাপারে যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মোল্লা আমীর হোসেন বলেন, বিষয়টি শুনেই আমি পরীক্ষা নিয়ন্ত্রককে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছি।
বোর্ডটির পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মাধব চন্দ্র রুদ্র বলেন, তারা ঢাকায় ছিলেন। আজ সকাল থেকেই তাদের হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে।
স্বাআলো/ডিএম