পোষাক কর্মী দম্পতি করোনায় আক্রান্ত

জেলা প্রতিনিধি, বাগেরহাট : বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলায় এবার ঢাকা থেকে ফেরা পোষাক কর্মী দম্পতি করোনাভাইরাস পজেটিভ শনাক্ত হয়েছেন। চিতলমারী উপজেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগ মঙ্গলবার সকালে উপজেলার কলাতলা ইউনিয়নের চরচিংগুড়ি গ্রামে গিয়ে ওই বাড়িটিসহ আশেপাশের ১১টি বাড়ি অবরুদ্ধ ঘোষণা করে লাল পতাকা টাঙ্গিয়ে দিয়েছেন।

আক্রান্ত দম্পতির শরীরে উপসর্গ না থাকায় বাড়িতে রেখেই তাদের চিকিৎসা দেবে স্বাস্থ্য বিভাগ। স্বাস্থ্য বিভাগ ওই দম্পতির সংষ্পর্শে আসা পরিবারের শিশুসহ ১০ জনের নমুনা সংগ্রহ করছে। ১১ মার্চ ঢাকার ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় এই দম্পতির শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ে জানিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। এই দম্পতির বয়স ২০ থেকে ২৫ বছর।

চিতলমারী উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা মারুফুল আলম জানান, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত পোষাক কর্মী এই দম্পতি গত ৯ মে ঢাকা থেকে পার্শ্ববর্তী গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় এক আত্নীয়ের বাড়িতে ওঠেন। পরদিন ওইখানের প্রতিবেশিরা তাদের ফেরার বিষয়টি স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগকে জানালে টুঙ্গিপাড়া স্বাস্থ্য বিভাগ তাদের নমুনা সংগ্রহ করে পরিক্ষার জন্য ঢাকার ল্যাবে পাঠায়। পরিক্ষার রিপোর্ট আসার আগেই সোমবার বিকেলে তারা টুঙ্গিপাড়ার ওই আত্নীয়ের বাড়ি থেকে নিজ বাড়ি চিতলমারীতে চলে আসেন।

গতকাল ১১ মে ল্যাবের পরীক্ষায় এই দম্পতির শরীরে করোনা পজেটিভ হয়। গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া স্বাস্থ্য বিভাগের মাধ্যমে খবর পেয়ে মঙ্গলবার সকালে সেখানে গিয়ে আক্রান্ত ওই বাড়িটিসহ আশেপাশের ১১ টি বাড়ি অবরুদ্ধ করে লাল পতাকা টাঙ্গিয়ে দিয়েছি।

চিতলমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মামুন হাসান সকালে জানান, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ওই দম্পতিকে পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হয়েছে। এদের শরীরে করোনাভাইরাসের যেসব উপসর্গ থাকার কথা তার কোনটাই নেই। তারা দুজনই সুস্থ স্বাভাবিক রয়েছেন। তাদের বাড়িতে রেখে চিকিৎসা দেয়া হবে। এই দুজনের সংষ্পর্শে আসা শিশুসহ ১০ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য খুলনার ল্যাবে পাঠানো হবে।

স্বাআলো/এসএ