চৌগাছায় সুপার সাইক্লোনে নিহত মা-মেয়ে, সারারাত ঘরেই পড়ে রইল লাশ

আজিজুর রহমান, চৌগাছা (যশোর): যশোরের চৌগাছায় সুপার সাইক্লোন আম্ফানে ক্ষ্যান্ত বেগম (৪৫) ও রাবেয়া খাতুন (১৩) নামে মা-মেয়ের করুন মৃত্যু হয়েছে। একই ঘটনায় গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ক্ষ্যান্ত বেগমের ছেলে লিটন হোসেন (২০)। তারা চৌগাছা পৌরসভার হুদাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা।

চৌগাছা থানার ওসি রিফাত খান রাজীব ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

বুধবার রাত আটটায় দ্বিতীয়বার আঘাত হানার পর রাত সাড়ে ৯টার দিকে বাড়ির উঠানের একটি জামগাছ উপড়ে ঘরের উপর পড়লে ঘটনাস্থলেই মা-মেয়ে নিহত হন।

স্থানীয়রা জানান বুধবার সন্ধ্যায় ক্ষ্যান্ত বেগম তার ছেলে ও মেয়েকে নিয়ে আধাকাঁচা ঘরের বারান্দায় একটি চৌকির উপর শুয়ে ছিলেন। এসময় প্রবল ছড়ে বাড়ির উঠানে থাকা একটি মাঝারি আকৃতির জামগাছ উপড়ে তাদের উপর পড়লে ঘটনাস্থলেই তাদের মৃত্যু হয়। আর লিটন হোসেন কোনরকমে বেচে গেলেও তার একটি পা ভেঙে গেছে এবং বুকে আঘাত পেয়েছেন।

মা- মেয়ে নিহত হবার ঘটনা তাৎক্ষণিকভাবে গ্রামে জানাজানি হলেও সুপার সাইক্লোনের প্রভাবে কেউ ঘর থেকে বের হতে না পারায় লাশ দুটি সারারাত সেখানেই পড়ে থাকে। পরে বৃহস্পতিবার সকালে স্বজনরা ওই বাড়িতে যায়। ঝড়ের কারনে আহত লিটনকেও বৃহস্পতিবার সকালে চৌগাছা উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বৃহস্পতিবার দুপুরে মা ও মেয়েকে দাফন করা হয়।

নিহতদের পারিবারিক সূত্র জানায়, ক্ষ্যান্ত বেগমের স্বামী ওয়াজেদ আলী কয়েকমাস আগে একটি মামলায় জেলখানায় মারা যান। এরপর থেকে ক্ষ্যন্ত বেগম দিনমজুরি করে আর লিটন চৌগাছা বাজারে সবজি বিক্রি করে সংসার চালাতেন।

বৃহস্পতিবার সকালে চৌগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এদিকে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রইচ উদ্দিন জানান, আম্ফানে উপজেলার ৬৬ কোটি ৩৪ লাখ টাকার কৃষি পণ্যের ক্ষতি হয়েছে।

স্বাআলো/ডিএম