এখনই গণপরিবহন অফিস খোলার বিপক্ষে ওয়ার্কার্স পার্টি

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা: আগামী ১ জুন থেকে সরকারি সিদ্ধান্তে সীমিত পরিসরে গণপরিবহন চলাচল শুরু হচ্ছে। একই সাথে খুলছে সরকারি-বেসরকারি অফিস, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। তবে সরকারি এই সিদ্ধান্ত গণবিরোধী, হঠকারী ও আত্মঘাতী বলে দাবি করেছে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি (মার্কসবাদী)।

দলটির সভাপতি নূরুল হাসান ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল কবির জাহিদ শুক্রবার এক বিবৃতিতে বর্তমান সময়কে ‘করোনা সংক্রামনের সর্বোচ্চ ঝুঁকির সময়’ উল্লেখ করে এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানান।

বিবৃতিতে বলা হয়, বিশেজ্ঞদের মতামত ও দৈনিক পরীক্ষার ফলাফল বলছে আমরা এখন চরম ঝুকিপূর্ণ অবস্থায় আছি। এমন সময় সার্বিক অবস্থা বিবেচনা না করে আগের মতো সরকারি আবারো আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যা ব্যপক সংক্রামণ ও গণমৃত্যুর পথকেই প্রসস্থ করবে। ইতিমধ্যেই গ্রাম গ্রামান্তরে ব্যাপক সংক্রামণ ছড়িয়ে পড়েছে। শুরু থেকেই সরকারের দায়িত্বহীনতা, অব্যবস্থাপনা, অবাধ দুর্নীতি এবং তথ্য গোপন করে পরিস্থিতি জটিল করা হয়েছে। পরীক্ষা, চিকিৎসা ও নিরাময়ের জন্য যথাযথ সময়ে ও যথোপযুক্ত উদ্যোগ নেয়া হয়নি। সাধারণ রোগীরা বিনা চিকিৎসায় পথে ঘাটে মৃত্যুবরণ করছে। এই মৃত্যুর দায়ভারও সরকার এড়াতে পারে না।’

‘গতকালের পরীক্ষার রিপোর্ট অনুযায়ী আক্রান্ত এক চতুর্থাংশ। প্রতিদিন মৃতের সংখ্যা বাড়ছে। পৃথিবীর যে সকল দেশ লকডাউন তুলে নিচ্ছে, তাদের সংক্রামণ ও মৃতের হার প্রতিদিন নিম্নমুখি। আর আমাদের উর্ধোমুখি। এই পরিস্থিতিতে সবকিছু খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত শুধু গণবিরোধীই নয়, হঠকারী ও আত্মঘাতী।’

নেতৃবৃন্দ এই আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত এখনই প্রত্যাহারের দাবি জানান। একই সাথে পরিস্থিতি মোকাবেলায় জনগণের প্রতি সচেতনায় গণ-উদ্যোগকে আরো জোরদার করার আহ্বান জানানো হয়।

স্বাআলো/ডিএম