যশোরে মারুফ-জাকিরের সন্ত্রাসী বাহিনীর হাতে জিম্মি স্থানীয়রা

নিজস্ব প্রতিবেদক, যশোর: যশোর সদরের নরেন্দ্রপুর গ্রামের মারুফ-জাকিরের সন্ত্রাসী বাহনীর হাতে জিম্মি হয়ে পড়েছে স্থানীয়রা। নানা অজুহাতে একেরপর এক সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে তারা। ওই সন্ত্রাসী বাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দিলে তা গ্রহণ করছে না থানা পুলিশ।

বৃহস্পতিবার প্রেসক্লাব যশোরে সংবাদ সম্মেলন করে এমন অভিযোগ করেছেন এলাকাবাসী। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ফারহান সাদিক রাসেল, প্রভাষ দত্ত, শহিদুল ইসলাম, মফিজুর দফাদার প্রমুখ।

খিলিত বক্তব্যে আলমগীর হোসেন বলেন, নরেন্দ্রপুর ইউনিয়নের ৩নং ওয়াডের সদস্য জাকির হোসেন ছোট ভাই মারুফ হোসেন একটি সন্ত্রাসী বাহিনী গঠন করে এলাকায় দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। তার সন্ত্রাসী দলের সদস্যরা এলাকার নিরীহ লোকজনদের মারপিট, হুমকি-ধামকি ও চাঁদাবাজি করেছে। তাদের ভায়ে কেউ মুখ খলতে সাহস পাচ্ছেনা।

তিনি বলেন, তিন বছর চুক্তিতে তিনি একই এলাকার বিশ্বজিতের কাছে একটি পুকুর লিজ দেন। গত ১৫ এপ্রিল লিজের মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। এখন বিশ্বজিতের কর্মচারী মারুফের সন্ত্রাসী বাহিনীর সদস্যরা পুকুর দখল করে কাউকে যেতে দিচ্ছেনা। এনিয়ে জাকির-মারুফ সন্ত্রাসী বাহিনীর সাথে তাদের বিরোধের সৃষ্টি হয়। গত ৩১ মে ও ১ জুন রাতে জাকির-মারুফ সন্ত্রসী বাহিনী তার চাচা সিরাজুল ইসলামের বাড়িতে ভাংচুর ও আগুন লাগিয়ে দেয়। আগুনে পুড়ে দুইটি পাওয়ার টিলারসহ কয়েক লাখ টাকার ক্ষতি হয়। এ ব্যাপারে সিরাজুল ইসলাম জাকিরসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দিলেও মামলা হিসেবে রেকর্ড করেনি পুলিশ। এদিকে থানায় মামলা না নেয়ায় জাকির-মারুফের সন্ত্রাসী বাহিনী আরও বেপরওয়া হয়ে উঠেছে। তার পরিবারের লোকজন পেলে খুন জখন করবে হুমকি দিয়ে বেড়াচ্ছে। ভয়ে কেউ মুখ খুলতে পারছেনা। এ ব্যাপরে তিনি প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছন।

স্বাআলো/এসএ