কাজ শেষের আগেই যশোর-খুলনা মহাসড়ক বেহাল, ক্ষুব্ধ বাম নেতারা

নিজস্ব প্রতিবেদক, যশোর: যশোর-খুলনা মহাসড়কের নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার আগেই বিভিন্ন জায়গায় বসে ও বিটুমিন উঠে গেছে। তাই এই কাজের সাথে যুক্ত ঠিকাদারসহ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছেন যশোরের বাম নেতারা। ঠিকাদারকে কালো তালিকাভুক্তি, সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়াসহ চার দফা দাবিতে তারা প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি পাঠিয়েছেন।

রবিবার জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে বাম গণতান্ত্রিক জোটের সিপিবি, বাংলাদেশের ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগ, বাসদ, বাসদ (মার্কসবাদী) এবং বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি (মার্কসবাদী) যশোর জেলা সমন্বয় কমিটির পক্ষ থেকে এই স্মারকলিপি পাঠানো হয়।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, ৩২১ কোটি টাকা ব্যয়ে যশোর-খুলনা মহাসড়কের নির্মাণ কাজ ২০১৮ সালের মে থেকে ২০২০ জুনে শেষ করার কথা ছিল। কিন্তু সড়কের কাজ শেষ হওয়ার আগেই কোন কোন স্থানে বিটুমিন উঠে গেছে। বহুস্থানে রাস্তা ফুলে যায়। চুক্তি অনুযায়ী কাজ না হওয়ার কারণে ভবিষতে সড়কটি মরণফাদ হতে যাচ্ছে।
চুক্তি অনুযায়ী কাজ বুঝে দিতে যশোর সড়ক বিভাগের কোন ভূমিকা রাখেনি। আমরা মনে করছি ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মকর্তাদের যোগসাযোসে কোটি কোটি টাকা আত্মসাত করছেন। এজন্য দ্রæত নিরপেক্ষ তদন্ত করে দোষি কর্মকর্তা ও ঠিকাদারদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। এছাড়া দোষি ব্যাক্তিদের নিজ অর্থায়নে সড়কটি পুনঃনির্মাণ এবং এখন থেকে এমন উন্নয়নমূলক কাজে জনগণকে সম্প্রক্ত করার দাবি জানাচ্ছি।

স্মারকলিপি প্রদানে উপস্থিত ছিলেন সমন্বয় কমিটির সমন্বয়ক ও ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের জেলা সম্পাদক তসলিম-উর রহমান, সিপিবি যশোর জেলা শাখার সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল হোসেন, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি (মার্কসবাদী) জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান ভিটু, তরিকুল ইসলাম, শেখ শাজাহান প্রমুখ।

স্বাআলো/ডিএম