প্রতিকূলতার মাঝেও বর্ষালী ধানের বাম্পার ফলন

বৈরী আবহাওয়া এবং নানাবিধ প্রতিকূলতার মাঝেও চলতি মৌসুমে বর্ষালী (আউশ) ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। হতাশা কেটে এখন গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার কৃষকদের মুখে হাসি দেখা দিয়েছে। টানা বর্ষণে ধান ক্ষেত ডুবে গেলেও ফলন ভাল হয়েছে।

ইতোমধ্যে ধান কাটামাড়াই শুরু হয়েছে। কথা হয় দহবন্দ ইউনিয়নের দক্ষিণ ধুমাইটারী গ্রামের কৃষক আতোয়ার মিয়ার সাথে। চলতি মৌসুমে তিনি ২ বিঘা জমিতে বর্ষালী ধান চাষাবাদ করেছে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে কাটামাড়াই শুরু হবে। তিনি আশাবাদী প্রতিবিঘা জমিতে ফলন হবে ১০ হতে ১২ মণ। বিঘা প্রতি তার খরচ হয়েছে ৫ হতে ৬ হাজার টাকা। বর্তমান বাজার মোতাবেক প্রতিমন ধান বিক্রি হচ্ছে ৯০০ হতে ১ হাজার টাকায়। এতে করে এক বিঘা জমির ধানের দাম হবে ১০ হতে ১২ হাজার টাকা। বিঘা প্রতি তার লাভ হচ্ছে ৫ হাজার টাকা।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে ৮ হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে বর্ষালী ধানের চাষাবাদ হয়েছে। গত মৌসুমে বর্ষালী ধান চাষাবাদ হয়েছিল ৪ হাজার ৮৬ হেক্টর। দিন দিন এর চাষাবাদ বেড়েই চলছে।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ সৈয়দ রেজা-ই মাহমুদ জানান, উপজেলায় দিন দিন আউশ (বর্ষালী) ধানের চাষাবাদ দ্বিগুণ হারে বেড়েই চলছে। অল্প খরচে অধিক মুনাফা লাভের আশায় কৃষকরা বোনাস ফসল হিসেবে আউশ ধান চাষাবাদে ঝুকে পড়ছে।

স্বাআলো/এসএ