মেজর (অব.) সিনহা হত্যা: প্রদীপ-লিয়াকতের রিমান্ডে জটিলতা

সিনহার পরিবারের করা মামলায় এখনো রিমান্ডে নেয়া সম্ভব হয়নি ওসি প্রদীপ, এসআই লিয়াকতসহ ৩ জনকে।

র‌্যাব বলছে, পুরোপুরি প্রস্তুত থাকলেও কিছু জটিলতায় রিমান্ড শুরু করতে আরো কিছুদিন সময় লাগতে পারে। এদিকে সিনহার হারিয়ে যাওয়া ল্যাপটপ ও ক্যামেরার বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে শিপ্রা, সিফাত এবং আগের তদন্ত কর্মকর্তাকে।

৩১ জুলাই টেকনাফে পুলিশের গুলিতে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা নিহত হওয়ার পর ৫ আগস্ট পরিবারের পক্ষ থেকে ৯ পুলিশ সদস্যকে অভিযুক্ত করে দায়ের করা হয় মামলা । পরদিন এ ঘটনায় ৭ পুলিশ সদস্য আত্মসমর্পন করলে আদালত ৩ জনকে ৭ দিন করে রিমান্ড এবং বাকী ৪ জনকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দেয়।

রিমান্ড আদেশের পর পার হয়ে গেছে বেশ কদিন। ৪ আসামিকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলেও নানা জটিলতায় এখনও ওসি প্রদীপ, লিয়াকতসহ ৩ জনের রিমান্ড শুরু করতে পারেনি তদন্তকারী সংস্থা র‌্যাব। আদালতের নির্দেশে বাড়ানো হয়েছে সময়।

ব্রিফে র‌্যাবের কর্মকর্তা জানান, আসামিদের রিমান্ডে নেয়ার জন্য প্রস্তুত থাকলেও কিছু জটিলতায় এখনো রিমান্ডে নেয়া সম্ভব হয়নি ৩ আসামিকে।

তিনি বলেন, ‘এই মামলার অন্যতম সাক্ষী শিপ্রা এবং সিফাত। তারা মানসিক একটা ট্রমার ভেতর দিয়ে যাচ্ছে।

আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদের আগে তাদের কথাগুলো শুনতে হবে। এ কারণেই মূলত এখনও রিমান্ডে নেয়া সম্ভব হচ্ছে না।’

সিনহার হারিয়ে যাওয়া ল্যাপটপ ও ক্যামেরা সম্পর্কে তথ্য না পাওয়া গেলে প্রয়োজনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে সাক্ষী ও আগের তদন্ত কর্মকর্তাকে।

তদন্তকারী কর্মকর্তাকে তদন্ত কাজে সহায়তা করার জন্য অভিজ্ঞ পুলিশ কর্মকর্তাদেরও সহায়তা নেয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

স্বাআলো/এসএ