ধর্ষণের অভিযোগে আইনজীবী আটক

পঞ্চগড় : পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলায় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে হাবিবুর রহমান (২৮) নামে এক আইনজীবীকে আটক করেছে পুলিশ।

হাবিব উপজেলার দারখোর গ্রামের বাসিন্দা।

শুক্রবার দুপুরে উপজেলার কালিকাপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় রাতে ওই কিশোরীর বাবা আটোয়ারী থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন।

ভিকটিমের পরিবার উপজেলার মোলানী গ্রামে থাকেন। আর ভিকটিমের বাবা জীবিকার তাগিদে তেঁতুলিয়া উপজেলায় এক স্বর্ণের দোকানে কাজ করেন। গত ৫ থেকে ৬ মাস আগে হাবিবের কাছ থেকে টাকা ধার নিয়েছিলেন ওই কিশোরীর বাবা। সেই সুবাধে ভিকটিমের পরিবারের সঙ্গে হাবিবের পরিচয়, সম্পর্ক। পূর্ব পরিচয়ের সুবাদে হাবিব ভিকটিমদের বাড়িতে প্রায়ই আসা-যাওয়া করতো।

বৃহস্পতিবার  ভিকটিমসহ তার ভাই দাড়িমনি গ্রামে আত্বীয়ের বাড়িতে যান। ওই দিন সকালে হাবিব ভিকটিমদের বাড়িতে গিয়ে তাকে দেখতে না পেয়ে চলে আসেন। পরদিন শুক্রবার দুপুরে ওই স্কুলছাত্রীর বাবা তার জন্য বাজারে অপেক্ষা করছে এমন কথা বলে কৌশলে তাকে উপজেলার মির্জা গোলাম হাফিজ ডিগ্রি কলেজ মোড়ে সুশীলের বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় ভিকটিমের চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে হাবিবকে আটক করে পুলিশকে খবর দেয়।

আটোয়ারী থানার ওসি ইজার উদ্দীন জানান, এ ঘটনায় হাবিবকে প্রধান আসামি করে তিনজনের নামে ধর্ষণ মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার অপর আসামিরা হলো হাবিবের সহযোগী সুশীল চন্দ্র দাস (২৮) ও সুশীলের স্ত্রী শুকুনী দাস (২২)। তাদের আটকের চেষ্টা চলছে।

পঞ্চগড়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার  সুদর্শন কুমার রায় জানান, আটক হাবিব আসলে আইনজীবী কী না তদন্তের আগে বলা যাচ্ছে না। তবে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

স্বাআলো/কে