গৃহবধূ মিম হত্যার বিচারের দাবিতে মরদেহ নিয়ে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

কুষ্টিয়ার মিরপুরে স্বামী ও শাশুড়ির নির্যাতনে নিহত গৃহবধূ মিম হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ বুধবার সকালে মিরপুর উপজেলার কচুয়াদহ গ্রামে মিমের দাফনের আগে তার কফিন সামনে রেখে এই মানববন্ধন করেন মিমের স্বজন ও এলাকাবাসী। এসময় তারা মিমের হত্যাকারী হিসেবে মিমের স্বামীসহ তার শাশুড়ির ফাঁসির দাবি জানান।

ঘন্টাব্যপী চলা মানবন্ধনে এলাকার শতশত নারী-পুরুষ অংশগ্রহণ করেন। নিহত মিম মিরপুর উপজেলার কচুয়াদহ গ্রামের মহিবুল আলম মাস্টারের মেয়ে।

নিহত মিমের মা তাজমা খাতুন জানান, ৪ বছর আগে কুষ্টিয়ার দৌলতপুরের তারাগুনিয়া এলাকার মৃত জিন্না মোল্লার ছেলে এজাজ আহম্মেদ বাপ্পীর সাথে মিমের পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই যৌতুকের দাবিতে বাপ্পীর মা এবং বাপ্পী মিমের উপর নির্যাতন চালাতো।

গত ২ সেপ্টেম্বর মিমের স্বামী ও শাশুড়ি যৌতুক হিসেবে মোটরসাইকেলের দাবি করে মিমকে বেধরক পিটিয়ে আহত করে। পরে কাউকে কিছু না জানিয়ে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে রেখে যায় মিমের স্বামী বাপ্পী। প্রতিবেশিদের কাছ থেকে খবর পেয়ে গুরুত্বর আহত অবস্থায় মিমের স্বজনরা কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে মিমকে খুজে পায়। পরদিন তার অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসাপাতলে নেয়া হয়। সেখানে ১৩ দিন আইসিইউতে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে মঙ্গলবার ভোর ৪টার দিকে মারা যায় মিম।

মিমের পরিবারের দাবি, এই ঘটনায় দৌলতপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করলেও এখনো মামলা নেয়নি পুলিশ।

স্বাআলো/ডিএম