পুকুরে ও নদীতে ডুবে ৩ কিশোর-কিশোরীর মৃত্যু

 রাঙামাটি : রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলার রাইখালীতে পৃথক দুর্ঘটনায় পুকুর এবং নদীর পানিতে ডুবে তিন কিশোর-কিশোরীর মৃত্যু হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শনিবার দুপুরে রাইখালী বাজারের জামে মসজিদের পুকুরে মিজানুর রহমান (১২) নামের এক কিশোর গোসল করতে নামে।  দীর্ঘ সময় পার হওয়ার পর তাকে খুঁজে পাওয়া না গেলে স্থানীয়রা পুকুরে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। এরপর বিকেলের দিকে পুকুর থেকে তাকে উদ্ধার করে স্থানীয়রা চন্দ্রঘোনা খ্রিস্টিয়ান মিশন হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। নিহত কিশোর ওই উপজেলার চন্দ্রঘোনার এনামুল হকের ছেলে।

একইদিন দুপুরে রাইখালীর পূর্বকোদালা নদীতে মাকসুদা আক্তার (১২) এবং হাফসা আক্তার (১৩) নামের দুই কিশোরী পৃথক ভাবে গোসল করতে নামে। গোসল করতে গিয়ে বাড়ি না ফেরায় তাদের স্বজনরা খোঁজ নিতে শুরু করেন। অবশেষে রাত সাড়ে ৮টার দিকে ডুবুরি দলের সাহায্য তাদের মৃত অবস্থায় নদী থেকে উদ্ধার করা হয়।

নিহত মাকসুদা পূর্ব খন্তাকাটার মফিজুর রহমানের মেয়ে এবং হাফসা আক্তার জঙ্গল কোদালা বাজারের মহিবুল্লাহর মেয়ে।

চন্দ্রঘোনা থানার ওসি ইকবাল বাহার চৌধুরী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এসব ঘটনায় থানায় তিনটি অপমৃত্যু  মামলা দায়ের করা হয়েছে।

কাপ্তাই উপজেলার চেয়ারম্যান  মফিজুল হক বলেন, এমন ঘটনা সত্যিই বেদনাদায়ক। প্রত্যোক মা-বাবার উচিত সন্তানদের প্রতি বেশি যত্নবান হওয়া। যদি মা-বাবা সচেতন হয় তাহলে এই ধরণের অপমৃত্যু রোধ করা অনেকাংশে সম্ভব। এ সময় তিনি শোকার্ত পরিবারদের প্রতি সমবেদনা জানান।

স্বাআলো/কে