মূল্যায়িত হলেন রাজপথের নেত্রী নুরজাহান ইসলাম নীরা

16

যশোর: নানা জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে যশোর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন জেলা মহিলা লীগের সাবেক সভাপতি, বর্তমান ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নুরজাহান ইসলাম নীরা। ছাত্রলীগের রাজনীতির মাধ্যমে হাতেখড়ি নীরা প্রায় ৪০ বছর ধরে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে আছেন।

এদিকে, নুরজাহান ইসলাম নীরা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন পাওয়ায় অভিনন্দন জানিয়েছেন যশোর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বিপুল।

আপদমস্তক রাজনৈতিক নুরজাহান ইসলাম নীরা গত বছর উপজেলা পরিষদ নির্বাচেন ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে জনগণের ভোটে নির্বাচিত হন।এমন একজন মাঠের রাজনীতিককে সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনে নৌকার মাঝি ঘোষণা  করায় উৎফুল্ল আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। বিপুল ভোটের ব্যবধানে তাকে বিজয়ী করতে প্রস্তুতি নিচ্ছেন তারা।

নূরজাহান ইসলাম নিরার বাবা মরহুম রফিউদ্দীন আহমেদ পাকিস্তান আমলে বাঘারপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতাদের মধ্যে অন্যতম।

নুরজাহান ইসলাম নীরা বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে পারিবারিক সহযোগিতায় আমি ১৯৮১ সালে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে যুক্ত হয়। ওই সময় যশোর সরকারি মহিলা কলেজে লেখাপড়া করি। দায়িত্ব পাই কলেজ ছাত্রলীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদকের। পরবর্তীতে জেলা ছাত্রলীগের সহ-সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছি।’

জানা যায়, ১৯৯৩ সালে যশোর পৌরসভার ওয়ার্ড কাউন্সিলর নির্বাচিত হন নুরজাহান ইসলাম নীরা। ওই নির্বাচনে তিনি পুরুষ প্রার্থীকে পরাজিত করে বিজয়ী হন। ১৯৯৭ সালে তৃণমূল নেতাকর্মীদের ভোটে  জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হন। ২০০১ সালে বিএনপি জামায়াত জোট ক্ষমতায় আসলে রাজপথে ছিলেন। এজন্য নানা ধরনের নির্যাতনের মুখোমুখি হতে হয়েছে তাকে।২০০৮, ২০১৪ ও ২০১৮ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীদের বিজয়ী করতে মহিলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে ভোটের মাঠে ছিলেন।২০১৯ সালে উপজেলা নির্বাচনে নুরজাহান ইসলাম নীরা মহিলা  ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তার এক বছরের মাথায় ২০২০ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি ভারপ্রাপ্ত উপজেলা চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পান তিনি।

ছাত্র রাজনীতি থেকেই তিনি সর্বদা তৃর্ণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের পাশে আছেন। সবার সাথে তিনি হাসিমুখে কথা বলেন। তার কাছে এসে নেতাকর্মীরা সব সময় সাহস ও উদ্দীপনা পান। এমন একজন রাজনীতিককে সদর উপজেলায় দলীয় মনোনয়ন পাওয়ায় নেতাকর্মীরা বেশ খুশি।

সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ সোহরাব হোসেন বলেন, নুরজাহান ইসলাম নীরা সবার প্রিয় মানুষ। তিনি সবার সাথে সুন্দর ব্যবহার করেন। দলমত নির্বিশেষে সদর উপজেলার সবাই তাকে পছন্দ করেন। দলের জন্য তার অনেক অবদান রয়েছে। আওয়ামী লীগের সভাপতি বঙ্গবন্ধু কণ্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে সদর উপজেলায় নৌকার মাঝি বানিয়ে পুরস্কৃত করেছেন। আমরা সবাই তাকে বিজয়ী করতে এক্যবদ্ধভাবে প্রস্তুতি নিচ্ছি।

লেবুতলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলীমুজ্জামান মিলন বলেন, নৌকা প্রতীক পাওয়ায় নুরজাহান ইসলাম নীরাকে অভিনন্দন। দলের জন্য তার অনেক ত্যাগ রয়েছে। তিনি রাজপথের যোদ্ধা। দল তাকে নৌকা দিয়ে মূল্যায়ন করেছে। তাকে ব্যাপক ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী করতে আমরা প্রস্তুতি নিচ্ছি।

স্বাআলো/ডিএম