উলিপুরে আ.লীগ নেতা আটক

7

কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলায় এক নারীর সাথে মধ্যরাতে অবৈধ কর্মকাণ্ডে লিপ্ত থাকার অভিযোগে ওয়ার্ড আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক মুকুল মন্ডলকে জনতা আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে।

চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার মধ্যরাতে উপজেলার দলদলিয়া ইউনিয়নের সাহেবের কুঠি মিয়াপাড়া গ্রামে।

আটক মুকুল মন্ডল উলিপুর পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলে থানা পুলিশ জানিয়েছে। তিনি পূর্ব নাওডাঙা গ্রামের বাসিন্দা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার দলদলিয়া ইউনিয়নের মিয়াপাড়া গ্রামের ঢাকায় কর্মরত এক রাজমিস্ত্রীর স্ত্রী ৩ সন্তানের জননীর সাথে পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ড আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক মুকুল মন্ডলের দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ সম্পর্ক চলে আসছিল। ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে মুকুল ওই বাড়িতে অবাধে যাতায়াত করায় এলাকার মানুষের মাঝে নানা গুঞ্জন চলছিল।

গত বুধবার রাতে প্রবল বৃষ্টি উপেক্ষা করে মুকুল মন্ডল ওই নারীর বাড়িতে প্রবেশ করলে স্থানীয় লোকজনের চোখে পড়ে। পরে তারা সংঘবদ্ধ হয়ে ওই বাড়িতে হানা দিলে মুকুল ঘরের বেড়া ভেঙে পালিয়ে যাওয়ার সময় একটি ডোবায় পড়ে যায়। এসময় এলাকাবাসী তাকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে খবর দেয়।

খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়।

বৃহস্পতিবার সকালে তাকে থানায় নিয়ে আসার পর কুড়িগ্রাম জেল-হাজতে প্রেরণ করে। এদিকে ওই নারীকে গ্রাম থেকে বিতাড়িত করার জন্য স্থানীয় ভাবে শালিস বৈঠক অব্যাহত রয়েছে বলে এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, মুকুল মন্ডল দীর্ঘদিন ধরে আ.লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকে নানা ধরণের জিনিসপত্র উপঢৌকন দিয়ে এলাকায় নানা অপকর্ম চালিয়ে দলের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করছিল।

পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি নুর আলম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি-সম্পাদককে জানাবো।

উলিপুর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম বলেন, বিষয়টি শুনেছি, তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত ঘটনা উৎঘাটন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উলিপুর থানার ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, যেহেতু কেউ মামলা দিচ্ছে না, সেহেতু তাকে সন্দেহজনক ধারায় জেল-হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

স্বাআলো/এসএ