অবশেষে শঙ্কাই সত্যি হলো

17

কোয়ারেন্টিন শর্ত ইস্যুতে বাংলাদেশের শ্রীলঙ্কা সফর নিয়ে শঙ্কা তৈরি হয়েছিল। অবশেষে শঙ্কাই সত্যি হলো। শ্রীলঙ্কার দেয়া কোয়ারেন্টিন শর্ত মেনে সেখানে যাচ্ছে না বাংলাদেশ জাতীয় দল। আপাতত সিরিজটি স্থগিত করা হয়েছে।

সোমবার মিরপুর শেরেবাংলায় সাংবাদিকদের বিষয়টি জানিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। পরিস্থিতি ঠিক হলে সিরিজটি পুনঃসূচি করার জন্য শ্রীলঙ্কাকে জানিয়ে দিয়েছে বিসিবি।

তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে গতকাল রবিবার শ্রীলঙ্কার উদ্দেশে দেশ ছাড়ার কথা ছিল মুমিনুল হকদের। কিন্তু শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট (এসএলসি) ১৪ দিনের আইসোলেশন শর্ত দেয়ায় আপাতত সফরে যাওয়া হচ্ছে না বাংলাদেশের।

এসএলসি জানিয়ে দিয়েছে, নিজ দেশের কোয়ারেন্টিনের শর্ত ভাঙতে পারবে না তারা। জবাবে বিসিবি জানিয়েছে, তাহলে এ মুহূর্তে সফর করা সম্ভব নয়।

এ ব্যাপারে বিসিবি কার্যালয়ে নাজমুল হাসান বলেন, ওরা যে গাইডলাইন দিয়েছে, সেসব মেনে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ খেলা সম্ভব নয়। আমরা আমাদের চাহিদাগুলো ওদের জানিয়েছি। একটা ছাড়া বাকিগুলোতে তারা রাজি আছে। কিন্তু যেটা আসল, সেটাতেই রাজি নয়। সেটা হলো ১৪ দিনের আইসোলেশন। এমন কঠোর আইসোলেশন যে ঘর থেকেই বের হওয়া যাবে না। এটা তো সম্ভব নয়। একজন ক্রিকেটার ১৪ দিন ঘরবন্দি থাকলে তাঁর ফিটনেস যেভাবে নষ্ট হবে, সেটা থেকে বের হতেই তো সময় লাগবে। ওই অবস্থায় খেলা সম্ভব নয়। ওদের এই নিয়ম আমাদের জন্য না শুধু, যেকোনো পর্যটকের জন্য একই নিয়ম। ওরা চেষ্টা করেছে কোয়ারেন্টিন শিথিল করতে, কিন্তু পারেনি। ওরা জানিয়ে দিয়েছে, তাদের পক্ষে সম্ভব নয়। তাই আমরাও আজ বলে দিয়েছি, এই শর্ত মেনে খেলা সম্ভব নয়। আজকে আমরা ওদের জানিয়ে দিয়েছি পুনঃসূচি করার জন্য। যখন পরিস্থিতি ভালো হবে, যখন কোনো শর্ত থাকবে না, তখন আমরা যাব।

এ সময়ে ঘরোয়া লিগ শুরুর কথা জানিয়েছেন বিসিবি সভাপতি। তিনি বলেন, আমরা খেলা শুরু করব। কয়েকটা প্রস্তুতি ম্যাচ আছে। এরপরই ঘরোয়া ক্রিকেট শুরু করব আমরা। এখন ঘরোয়া ক্রিকেটেও ভাগ আছে। পাঁচ-ছয়টা দল নিয়ে ৯০ জনকে অন্তর্ভুক্ত করে খেলাতে পারি, তাহলে ভালো হয়। এটা করপোরেট লিগ বা যেকোনো লিগ হতে পারে বা বিসিবির টিমও হতে পারবে। আরেকটি চিন্তা করছি, জাতীয় দল, এইচপি নিয়ে তিন-চারটি দল বানিয়ে ফেললাম। এদের মধ্যে একটা টুর্নামেন্ট আয়োজন করলাম। এ দুইটার মধ্যে যেকোনোটি করার চেষ্টা করব।

স্বাআলো/এসএ