ভিসার মেয়াদ বাড়ালো সৌদি আরব

21

আটকে পড়া সৌদি আরব প্রবাসী কর্মীদের ভিসার মেয়াদ বেড়েছে আগামী ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত।

এতে গত ৩০ সেপ্টেম্বরের পর ভিসা বাতিল হয়ে যাওয়া কর্মীদের ফিরে যাওয়ার সুযোগ তৈরি হলো। এর আগে মেয়াদ বাড়ানোর দাবিতে টানা দুই সপ্তাহ ঢাকায় বিক্ষোভ করে প্রবাসী কর্মীরা।

বুধবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন ভিসা বাড়ানোর তথ্য নিশ্চিত করে গণমাধ্যমকে বলেন, আগামী ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত ভিসার মেয়াদ বাড়িয়ে দিয়েছে সৌদি আরব।

কূটনৈতিক সূত্র বলছে, ছুটিতে যাওয়ার সময় সব প্রবাসী কর্মীকে ‘এক্সিট রি-এন্ট্রি ভিসা’ বা পুনরায় প্রবেশের ভিসা নিয়ে যেতে হয়। ছুটি যত দিনের, এ ভিসাও তত দিনের থাকে। তাই নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই ফিরে যেতে হয়। নিয়োগকর্তা (কফিল) ছুটি বাড়ালে ভিসার মেয়াদও বেড়ে যায়। কারও যদি ইকামার মেয়াদ শেষ হয়ে যায়, তাও বাড়িয়ে নিতে হয়। এসব কাজ অনলাইনে করতে পারেন কফিল। কিন্তু করোনার জন্য বিভিন্ন দেশের লাখো কর্মী আটকা পড়েছেন। তাঁদের সবারই ছুটির মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। তাই হাজার হাজার কফিলের পক্ষ হয়ে এর আগে সৌদি সরকার স্বয়ংক্রিয়ভাবে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মেয়াদ বাড়িয়ে দেয়। এবার তা ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়লো।

প্রবাসীরা বলছেন, উড়োজাহাজের টিকিট না পাওয়ায় অনেকেই নির্ধারিত সময়ে যেতে পারেনি। অনেকে নিয়োগকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করে মেয়াদ বাড়িয়ে নিলেও কেউ কেউ হতাশ হয়ে পড়েন। সবার কফিল ভালো নয়। তাই স্বয়ংক্রিয়ভাবে মেয়াদ বাড়ানোর দাবি জানিয়ে আসছিল তারা। এখন সরকারের পক্ষ থেকে সবার মেয়াদ বাড়িয়ে দেয়ায় তাদের ফিরে যাওয়ার সুযোগ তৈরি হলো।

এর আগে গত ২১ সেপ্টেম্বর উড়োজাহাজের টিকিট ও ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর দাবিতে রাস্তায় নামেন প্রবাসী কর্মীরা। এরপর ২২ সেপ্টেম্বর ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর অনুরোধ জানিয়ে সৌদি সরকারকে চিঠি দেয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এরপর সৌদি সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়, সবাইকে আলাদা করে কফিলের সঙ্গে যোগাযোগ করে মেয়াদ বাড়িয়ে নিতে হবে।

স্বাআলো/এসএ