নির্যাতিত নারী ও শিশুদের  আশার বাতিঘর রেখা পারভীন

5
smart

নড়াইল : নারী ও শিশুদের নিয়ে কাজ করে জীবন পার করতে চান নড়াইল সদর উপজেলার  ঝিকিরা গ্রামের রেখা পারভীন। ইতোমধ্যে অসহায় নির্যাতিত নারী ও শিশুদের নিয়ে কাজ করার স্বীকৃতি স্বরূপ পেয়েছেন ২০১৯ সালে ব্রিটিশ কাউন্সিল কর্তৃক ডড়সবহ ঊহঃবৎঢ়ৎবহবংিবংযরঢ় ঘবঃড়িৎশরহম ঊাবহ ঞৎধরহরহম চৎড়মৎধস  এর পুরস্কার। ২০১৭ সালে আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ ও বেগম রোকেয়া দিবস উপলক্ষে সদর উপজেলার শ্রেষ্ঠ জয়িতার পুরস্কার,  ২০১৬ সালে বাচতে শেখা কর্তৃক সেরা ভলেন্টিয়ার মোটিভেটর পুরস্কার ও ২০১১ সালে মানুষের জন্য সংগ্রামে শপথে মানবাধিকার পুরস্কার।

রেখা পারভীন বলেন, ভদ্রবিলা নারী ও শিশু অধিকার সংস্থা ও সূর্যের আলো সমাজ উন্নয়ন সমিতির সভানেত্রী হিসাবে আমি চাই সমাজে কোন নারী ও শিশু নির্যাতন থাকবে না। সমাজে সকলে সুস্থভাবে বসবাস করতে পারবে। আমি অসহায় ৫ জন শিক্ষার্থীকে এস এস সি পরীক্ষা দেয়ার ব্যবস্থা করে দিয়েছি বাঁচতে শেখা এনজিও’র  মাধ্যমে। এলাকার যৌতুকের বলি পারুল হত্যা ,নিলুফা হত্যা , রত্না সিকদার হত্যার ন্যায্য বিচারের জন্য কাজ করেছি এবং আসামিরা বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তি পেয়েছে। এ ছাড়াও  প্রশাসনের সহযোগিতায় অনেক নারী পাচারকারীদের আইনের আওতায় এনে অসহায় নারীকে উদ্ধার করতে পেরেছি। অনেক নারীদের দেনমোহরের টাকা শালিশের মাধ্যমে ন্যায্য পাওনা আদায় করে দিতে পেরেছি। প্রশাসনের সহযোগিতায় অনেক বাল্য বিয়ে বন্ধ করেছি এবং অবিভাবকদের সচেতন করেছি।

তিনি আক্ষেপ করে  বলেন বাল্য বিয়ে বন্ধ করতে আমার জীবন হুমকির মধ্যে পড়েছে। ঘরের মধ্যে আটকিয়ে রেখেছে। অনেকে আমাকে হত্যার হুমকি দিয়েছে। পা কেটে ফেলতে চেয়েছে। পচা পুকুরে জুবাতে চেয়েছে। ঝরে পড়া শিশুদের স্কুলে আনতে  বাড়ি বাড়ি গিয়ে অভিবাবকদের  বুঝিয়ে স্কুলে পাঠিয়েছি।  তাদের  উপবৃত্তির ব্যবস্থা করেছি। প্রকৃত হতদরিদ্র অসহায়দের  বিধবা ভাতা,বয়স্ক ভাতা,প্রতিবন্ধি ভাতার ব্যবস্থা করে দিতে সহযোগিতা করেছি  চেয়ারম্যান, মেম্বরদের। অসহায় রোগীদের  হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছি।

আমার দাবি আমার এসব সেবা মূলক কাজ করার জন্য প্রশাসনের সহযোগিতা, যাতে করে নিরাপদে সকল হুমকি, ধামকি উপেক্ষা করে আমরণ মানুষের জন্য কাজ করে যেতে পারি।

স্বাআলো/কে