ব্যাংকের সঙ্গে মোবাইলে লেনদেনের সিদ্ধান্ত স্থগিত

চারটি ব্যাংকের সঙ্গে মঙ্গলবার থেকে মোবাইলে আর্থিক সেবাদাতা (এমএফএস) প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে যে লেনদেন হওয়ার কথা ছিল, সেই সিদ্ধান্ত আপাতত স্থগিত করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে মোবাইল ব্যাংকিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান ও সংশ্লিষ্ট ব্যাংকগুলোকে আন্তঃলেনদেন চালু করার বিষয়ে নিষেধ করে মৌখিকভাবে নির্দেশনা দেয়া হয়।

বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তারা বলছেন, মোবাইল ব্যাংকিং ও ব্যাংক হিসাবের মধ্যে যোগসূত্র ঘটানোর চেষ্টা এখনও সফল হয়নি। এর কারণ হিসেবে তারা বলছেন, কারিগরি কাজ শেষ করা যায়নি। কিছু জায়গায় এখনও ত্রুটি রয়েছে। যে কারণে মঙ্গলবার থেকেই এই সুবিধা পাওয়ার কথা থাকলেও গ্রাহকেরা তা পাচ্ছেন না।

তবে দ্রুত সময়ের মধ্যেই এই সেবা চালু করা যাবে বলে আশা করছেন তারা।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক সিরাজুল ইসলাম বলেন, টেকনিক্যাল কিছু সমস্যার কারণে আন্তঃব্যাংক ও মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মধ্যে লেনদেন করা সম্ভব হচ্ছে না।

তিনি বলেন, আন্তঃলেনদেন চালুর প্রক্রিয়াটি আরেকবার পর্যালোচনা করে দেখা হচ্ছে। এই পর্যালোচনা শেষ না হওয়া পর্যন্ত মোবাইল ব্যাংকিং হিসাব ও ব্যাংকের হিসাবের মধ্যে লেনদেন শুরু করা সম্ভব হবে না বলেও জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) বাংলাদেশ ব্যাংক এক সার্কুলারে জানায়, যেসব ব্যাংক ও মোবাইল ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠানের মধ্যে লেনদেন পরীক্ষামূলকভাবে সম্পন্ন হয়েছে, এখন কেবল তারাই এই সেবা দিতে পারবে। বাকিদেরকে আগামী বছরের মার্চের মধ্যে অবশ্যই এই সেবা চালুর নির্দেশনা দেয়া হয় ওই সার্কুলারে।

ব্যাংক ও মোবাইল ব্যাংকিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, চারটি মোবাইল ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠান এই সেবা চালুর জন্য প্রস্তুত ছিল। মোবাইল ব্যাংকিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান চারটি হলো, ব্র্যাক ব্যাংকের বিকাশ, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের ইউক্যাশ, ইসলামী ব্যাংকের এমক্যাশ ও আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের ই-ওয়ালেট। এই মোবাইল ব্যাংকিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে এক হিসাব থেকে আরেক হিসাবে টাকা পাঠানোর সেবা মঙ্গলবার থেকে চালুর কথা ছিল। এর বাইরে পূবালী ব্যাংকের হিসাব থেকে এই মোবাইল ব্যাংকিং সেবার হিসাবধারীদের সঙ্গে লেনদেন করার জন্যও ব্যাংকটি প্রস্তুত ছিল।

স্বাআলো/এসএ