অহর্নিশ বিনিদ্র অপেক্ষা

নিশুতির মরুদ্রথে একা বসে আছি

নির্জনে নিরিবিলি,

বিচলিত বিহ্বলে আমি একাকার!

তোমার প্রতীক্ষায়…

ওগো প্রণয়াস্পদ

তুমি আসবে বলে।

আমি প্রসুপ্ত নেত্রে এখনও জাগ্রত

ঐ সীমন্তিনীর আগমনের বারতায়,

সে তো দিয়েছে প্রবোধের বাণী,

অদ্য মোর চিত্ত প্রহৃষ্টে পরিপূর্ণ!

তুমি আসবে বলে।

আমি এক নিরন্ন অহর্নিশ প্রহরী

হৃদে জেগেছে চাগাড়ের প্রতিধ্বনি

বড়ই নেয়াল আনমনা মন…

নিস্তব্ধ মোর চোখের ঈক্ষণ!

তুমি আসবে বলে।

অপলক নেত্রে আজও নীলিমায়

তাকিয়ে থাকি…

জ্যোৎস্না শোভিত রজনীতে।

নক্ষত্রের মাঝে তোমাকে খুঁজে পাই,

এখনো প্রহর গুনি জংশনে বসে…

পলকহীন নয়নে চেয়ে থাকি…

তোমার আগমনের অস্ন্দিগ্ধ নিরঞ্জন কবে হবে…

ওগো প্রেমী।

আমি নিঃশ্বাসে-

সমীরণে মিশে থাকা তোমার গাত্রের গন্ধ পাই,

তুমি আসবে বলে।

গভীর বারিধির মহোর্মি থেমে গেল,

অস্ত যায়নি পশ্চিম ইথারে…

দিবসের ভাস্কর,

শুধু তুমি আসবে বলে।

সিরাজসুমন, সরকারি এম এম কলেজ, যশোর। এমএ (মাস্টার্স) ১৮তম ব্যাচ। বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিভাগ।

স্বাআলো/এসএ