নড়াইলে কলেজ শিক্ষককে গলাকেটে হত্যা, আটক ২

নড়াইলে চাঞ্চল্যকর কলেজ শিক্ষক (অব.) অরুণ রায় হত্যার ঘটনায় দু’জনকে আটক করেছে সদর থানা পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, তারা প্রাথমিকভাবে তারা হত্যার কথা স্বীকার করেছে। হত্যায় ব্যবহৃত ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে।

আটককৃতরা হলো, সদরের তুলারামপুর ইউনিয়নের ব্যানাহাটি গ্রামের একাদশ শ্রেণির ছাত্র রাজু দত্ত (১৮) এবং তার বন্ধু পার্শ্ববর্তী যশোর জেলার জামদিয়া ই্উনিয়নের দোগাছি গ্রামের দিপু বিশ্বাস (১৮)। জানা গেছে এরা দু’জনই নেশাগ্রস্থ।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, নড়াইল সদর থানা পুলিশ শুক্রবার (৩০ অক্টোবর) রাতে রাজু দত্তকে ব্যানাহাটি গ্রামের একটি মাছের ঘের থেকে এবং শনিবার সকালে দোগাছি গ্রামে বিলের মধ্যে থেকে দিপুকে আটক করে।

নিহতের এক নিকটাত্মীয় জানান, শনিবার সকাল ৯টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত নিহতের বাড়ির পূর্ব পার্শ্বের একটি ডোবা থেকে পুলিশ তার ব্যবহৃত চাবির ছড়া (এতে ২১টি চাবি ছিল), বাড়ির ফল কাটা ছুরি এবং হত্যাকারীদের ব্যবহৃত একটি টুপি উদ্ধার করে।

তিনি বলেন, রাজু ও দিপু নেশাগ্রস্থ এবং এলাকায় খারাপ ছেলে হিসেবে পরিচিত। একদিন কলেজ শিক্ষক অরুণ রায় তাদের নেশা করতে নিষেধ এবং বকাবকি করেন। এ কারণে তাকে হত্যা করতে পারে।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সদর থানার ওসি (অপারেশন) শিমুল কুমার দাস দু’জনকে আটকের কথা স্বীকার করে বলেন, প্রাথমিকভাবে তারা হত্যার কথা স্বীকার করেছে এবং একটি ছুরিও পাওয়া গেছে। এখনও ১৬৪ ধারায় জবানবন্ধি নেয়া হয়নি। জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে রবিবার জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে হয়ত এ ব্যাপারে একটি সংবাদ সম্মেলন করা হতে পারে। তখন বিস্তারিত জানানো হবে।

পুলিশ সুপার জসিম উদ্দিন বলেন, দু’জনকে আটক করা হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। হত্যার কিছু আলামতও পাওয়া গেছে। এসব যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) রাত ৮টার দিকে সদর থানা পুলিশ সদরের তুলরামপুর ইউনিয়নের হিন্দু অধ্যুষিত ব্যানাহাটি গ্রামের নিজ বাড়িতে অবসরপ্রাপ্ত কলেজ শিক্ষক অরুণ রায়ের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়। জানা গেছে, এ বাড়িতে তিনি একা থাকতেন। নিহতের ঘটনায় ২৪ অক্টোবর নিহতের স্ত্রী নিভা রাণী পাঠক সদর থানায় অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

স্বাআলো/এসএ