মরার আগে রক্ত দিয়ে কেন লিখে গেল স্বামী-প্রেমিকার নাম

অভয়নগরে কুসুম নামে একজন আত্মহত্যা করেছেন। ওই ঘরের মেঝেতে আত্মহত্যাকারী গৃহবধূ তার শরীরের রক্ত দিয়ে ইংরেজি বর্ণে দুটি অক্ষর লিখে গেছেন। স্থানীয়রা যা স্বামী ও তার কথিত পরকীয়া প্রেমিকার নামের আদ্যক্ষর বলছেন।

বৃহস্পতিবার রাতে নওয়াপাড়া পৌরসভার প্রফেসরপাড়া মতিয়ার রহমানের বাড়িতে এই ঘটনাটি ঘটে।

স্থানীয়রা বলছেন, রাজধানীর ইমতিয়াজ আবাবিল মোহাম্মদ ইয়াসিনের (৩৯) সঙ্গে প্রায় ছয় বছর আগে স্বামী পরিত্যক্তা অভয়নগর উপজেলার বিভাগদি গ্রামের কুলসুম আক্তার কুসুমের (৩৫) বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে কুসুম ও তার মেয়েকে নিয়ে প্রফেসরপাড়ায় মতিয়ার রহমানের বাড়ি ভাড়া নিয়ে বসবাস শুরু করেন ইয়াসিন। বিয়ের কিছুদিন অতিবাহিত হওয়ার পর কুসুম তার স্বামীর কথিত পরকীয়া প্রেমিকা ফাতেমা আক্তার রুমার ব্যাপারে জানতে পারেন। এ নিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদ শুরু হয়। এর জেরে স্বামীর ওপর অভিমান করে বৃহস্পতিবার রাতে তাদের ভাড়া বাড়িতে ফ্যানের সিলিংয়ের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন কুসুম।

কুসুমের মেয়ে ফোনে তার সৎ বাবার কল পেয়ে মায়ের ঘরে যাওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু দরজা ভেতর থেকে বন্ধ থাকায় মেয়ে জান্নাতুল ফেরদৌস মিম চিৎকার শুরু করে। চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে ঘরের মধ্যে কুসুমকে ঝুলে থাকতে দেখেন। পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশটি উদ্ধার করে। এই ঘটনায় থানায় অপমৃত্যু মামলা রুজু হচ্ছে বলে পুলিশ জানায়।

স্বাআলো/আরবিএ