মণিরামপুরে কৌশলে কৃষকের বাড়ি লুট

খাবারের সাথে চেতনাণাশক মিশিয়ে যশোর মণিরামপুর সুব্রত দাস (২৮) নামের এক কৃষকের বাড়িতে লুট করা হয়েছে। শুক্রবার দিবাগত রাত্রে উপজেলার রোহিতা দক্ষিণ দাসপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। সুব্রত ওই গ্রামের মৃত শংকর দাসের ছেলে। এই ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

সুব্রত দাস জানান, শুক্রবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে বাড়ি ফিরে দেখেন তার মা ঘরের মেইন গেট ও দরজা খুলে শুয়ে আছেন। তখন নিজে খাবার খেয়ে ঘুমাতে যান। খাবার খাওয়ার পরপরই তার বমি হয়। এরপর ঘুমঘুম ভাব হলে দরজা না লাগিয়ে তিনিও শুয়ে পড়েন। শনিবার সকাল সাতটার দিকে তার মা ঘুম থেকে জেগে দেখেন দরজা খোলা, ঘরের সব এলোমেলো। তখন তাকে ডেকে তোলেন মা তৃপ্ত রানি দাস।

সুব্রত বলেন, দুর্বৃত্তরা সন্ধ্যা রাতে কোন একসময় ভাত-তরকারির সাথে বিষাক্ত কিছু মিশিয়ে দিয়েছে। সেই খাবার খেয়ে আমি ও মা গভীরভাবে ঘুমিয়ে পড়ি। তখন তারা ঘরের আলমারি ও বাক্স খুলে ২২ হাজার টাকা, ৩২ ইঞ্চি একটি এলইডি টিভি, শাড়ি, কাপড় ও তিনটি মোবাইল ফোন নিয়ে গেছে।

সুব্রতর মা তৃপ্তি রানী দাস বলেন, রাতে খাবার খাওয়ার পর থেকে শরীরটা দুর্বল লাগছিল। তখন শুয়ে পড়লে ঘুম এসে যায়। ছেলে ফেরার বিষয়টি টের পাইনি। সকালে উঠে দেখি ঘরের দরজা, বাক্স আলমারি সব খোলা। ঘরে কিছুই নেই। এখনো আমি ও সুব্রত অসুস্থ।

স্থানীয় স্কুল শিক্ষক দেবাশীষ দাস বলেন, মণিরামপুরের পশ্চিম এলাকায় একের পর এক চুরি ডাকাতি ঘটেই যাচ্ছে। কোন প্রতিকার মিলছে না। এসব ঘটনায় আমরা আতঙ্কিত।

মণিরামপুর থানার ওসি (তদন্ত) শিকদার মতিয়ার রহমান বলেন, বিষয়টি নিয়ে কেউ এখনো অভিযোগ করেনি। আমরা খোঁজ নিয়ে দেখছি।

স্বাআলো/আরবিএ