বরিশালকে ১৫২ রানে আটকে দিলো খুলনা

মেহেদি হাসান মিরাজকে নিয়ে ওপেনিংয়ে নেমে শুরুটা ভালো করতে পারলেন না তামিম ইকবাল। দুই তরুণ পারভেজ হোসেন ইমন ও তৌহিদ হৃদয় পরে চেষ্টা করেছেন ঠিকই কিন্তু সাকিব আল-হাসান, শহিদুল ইসলাম ও শফিউল ইসলামদের বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি ধাচের ব্যাটিং করতে পারেননি। সব মিলিয়ে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে বড় স্কোর গড়তে পারেনি ফরচুন বরিশাল।

মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) ফরচুন বরিশালকে ১৫২ রানে আটকে দিয়েছে জেমকন খুলনা। বরিশালের অধিনায়ক তামিম ইকবাল কদিন আগে বলছিলেন, প্লেয়ার ড্রাফটে ভুল হয়েছে আমাদের। ঠিকভাবে দল সাজাতে পারিনি। আমার ওপর বড় দায়িত্ব থাকবে। তামিম নিজে সেই দায়িত্ব পালন করতে পারেননি। তাদের ড্রাফটের ভুলটাও চোখে পড়ল প্রথম ম্যাচেই।

স্পিন অলরাউন্ডার মেহেদি হাসান মিরাজকে নিয়ে ইনিংস শুরু করতে নেমেছিলেন টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং করতে নামা বরিশাল অধিনায়ক। শফিউল ইসলামের লাফিয়ে উঠা ইনিংসের প্রথম বলেই বিদায় মিরাজ। আল-আমিনের সুইংয়ে সুবিধা করতে না পারা তামিম (১৫ বলে ১৫) ফিরেছেন শহিদুল ইসলামের ওপর চড়াও হতে গিয়ে।

এরপর সাকিব আল হাসানের আঘাত। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে এক বছরের বেশি সময় পর যে মাঠে নেমেছেন সাকিবের বোলিং দেখে সেটা মনেই হলো না। প্রথম ওভারে মাত্র তিন রান খরচ করা সাকিব দ্বিতীয় ওভারে ফেরান আফিফ হোসেন ধ্রুবকে। তবে তরুণ ইমন একপ্রান্ত ধরে দারুণভাবে এগুচ্ছিলেন।

তরুণ তারকা ৪২ বলে ৫১ রান করলেন বলেই বলার মতো একটা সংগ্রহ পেয়েছে বরিশাল। তার ইনিংসে চার ৩টি, ছক্কা ৪টি। তার মধ্যে সাকিব আল হাসানকে একবার আছড়ে ফেললেন গ্র্যান্ড স্ট্যান্ডে। তৌহিদ হৃদয় ২৫ বল খেলে দুই চারে করেছেন ২৭ রান। এছাড়া বলার মতো রান পেয়েছেন কেবল মুকিদাল ইসলাম অঙ্কন। ১০ বলে ৩ ছয়ে ২১ রান করেছেন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। শেষ ব্যাটসম্যান তাসকিন আহমেদ ৫ বলে করেছেন ১২ রান। ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৫২ রান তুলেছে বরিশাল।

খুলনার হয়ে ১৭ রানে চার উইকেট নিয়েছেন শহিদুল ইসলাম। দুটি করে উ্ইকেট নিয়েছেন শফিউল ইসলাম ও মাহমুদুল হাসান। সাকিব তিন ওভার বোলিং করে ১ উইকেট নিয়েছেন ১৮ রান খরচায়।

স্বাআলো/এসএ