জানাজায় যাওয়ার পথে আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টা

এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে নড়াইলের কালিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও চাঁচুড়ী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও লুৎফার রহমান মোল্যাকে (৬৮) ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা। আশংকাজনক অবস্থায় তাকে প্রথমে নড়াইল সদর হাসপাতালে ও পরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে কালিয়া-নড়াইল সড়কের কালিবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে। আওয়ামী লীগ নেতা ও সাবেক চেয়ারম্যান লুৎফার রহমানের ওপর হামলার ঘটনায় ওই এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কালিয়া উপজেলার বনগ্রামের বাসিন্দা লুৎফার রহমান ও একই গ্রামের মুকুল মোল্যা ও টুটুল মোল্যার মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দ্বন্দ্ব সংঘাত চলে আসছিল। এ গ্রামটিতে প্রায়ই হামলা সংঘর্ষের ঘটনা লেগেই থাকে। এরই মধ্যে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে লুৎফার রহমান কালিয়ার বনগ্রামের নিজবাড়ি থেকে মোটরসাইকেল যোগে নড়াইল পৌরসভার প্রয়াত মেয়র জাহাঙ্গীর বিশ্বাসের নামাজে জানাজায় অংশ নেয়ার জন্য নড়াইল যাওয়ার পথে নড়াইল-কালিয়া সড়কের কালিবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে পৌঁছালে পূর্ব থেকে ওৎপেতে থাকা একই গ্রামের মুকুল মোল্যা ও টুটুল মোল্যার নেতৃত্বে ২৫/৩০ জনের একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী মোট সাইকেল থামিয়ে তার ওপর হামলা চালায় এবং ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে তাকে হত্যার চেষ্টা চালায়। সন্ত্রাসীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার দুই হাত ও দুই পায়ের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে। আশংকাজনক অবস্থায় তাকে প্রথমে নড়াইল সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে তার অবস্থার অবনতি দেখা দিলে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

কালিয়া থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, হামলার ঘটনার সাথে জড়িতদের ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে। কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

স্বাআলো/এসএ