বিজয়ের মাসেই হবে পদ্মা সেতুর বিজয়

বিজয়ের মাসে পদ্মাসেতুতে সর্বশেষ ৪১ তম স্প্যানটি বসানো হবে। দৃশ্যমান হবে পুরো পদ্মাসেতু। অর্থাৎ ৬.১৫ কিলোমিটার। সেতু কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে, ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসের আগেই সেতুর ১২ ও ১৩ পিলারের ওপর বসবে সর্বশেষ স্প্যানটি।

২০২১ সালের ডিসেম্বরে স্বপ্নের পদ্মাসেতু যানচলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হবে। বিজয়ের মাসে পদ্মাসেতুর স্প্যান বসানো কাজ শেষ হবে আর পরবর্তী বিজয় মাসে যানচলাচলের জন্য খুলে দেয়া হবে। বাংলাদেশের বিজয়ের মাস ডিসেম্বর পাশাপাশি পদ্মাসেতু বিজয়ের মাসও হবে ডিসেম্বর।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, পদ্মাসেতুর বাস্তব কাজের অগ্রগতি ৯১ শতাংশ। সেতুর বিভিন্ন কাজের পাশাপাশি রোড স্লাব ও রেল স্লাব বসানোর কাজও দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলেছে। সেতুতে রোড স্লাব ২৯১৭ টি এর মধ্যে ১২৩৯ টি বসানো হয়েছে। রেল স্লাব ২৯৫৯ টির মধ্যে ১৮৬০ টি বসানো হয়ে গেছে। দু’পাড়ে ১৪ কিলোমিটার সংযোগ সড়কের কাজ শেষ হয়ে গেছে আগেই। নদীশাসনের কাজ সমাপ্ত হয়েছে ৭৫ শতাংশ।

২০১৪ সালে পদ্মাসেতুর নির্মাণ কাজ। ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসে বসানো হয় প্রথম স্প্যানটি। ধাপে ধাপে ৪০ টি স্প্যান বসানো হয়েছে। বাকি রয়েছে একটি স্প্যান যা বসবে বিজয় দিবসের আগেই। ৬.১৫ কিলোমিটার দৈর্ঘের এই দ্বিতল বহুমূখী পদ্মাসেতুটির কাঠামো নির্মিত হয়েছে কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে। এই সেতুর ওপরের অংশে চলবে বিভিন্ন যান এবং নিচ দিয়ে চলবে রেল। রেল লাইনটি শেষ হবে যশোর রেলওয়ে জংশনে। মূল সেতুটি নির্মাণের জন্য কাজ করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি ও নদীশাসনের কাজ করছে সিনো হাইড্রো কর্পোরেশন।

স্বাআলো/আরবিএ