অন্তঃসত্ত্বা ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ ও চিরকুট উদ্ধার

শেরপুর সদর উপজেলার কুঠুরাকান্দার পশ্চিমপাড়া থেকে ইতু (১৪) নামের এক স্কুল ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে ছাত্রীর লাশ উদ্ধারের পর ঘটনাস্থল থেকে একটি চিরকুটও উদ্ধার করা হয়েছে। এটি ইতুর হাতের লেখা চিরকুট বলে ইতুর পরিবার দাবি করেছে।

প্রেমিক রাশেদ প্রেমের ফাঁদে ফেলে একাধিকবার ধর্ষণ করায় অন্ত:স্বত্বা হয়ে পড়ে ইতু। কিন্তু প্রেমিক রাশেদ তা অস্বীকার করলে স্থানীয় নতুনকুড়ি স্কুলে পড়ুয়া ৮ম শ্রেণীর এই ছাত্রী চিরকুট লেখে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে, যা তার চিরকুটে উল্লেখ ছিল।

পারিবারিক সূত্র থেকে জানা গেছে, শেরপুর সদর উপজেলার কুঠুরাকান্দা পশ্চিমপাড়ার  ঢাকায় অবস্থানরত ব্যবসায়ী রহমতুল্লাহ এর মেয়ে ইতুর সঙ্গে একই গ্রামের পূর্বপাড়া অপর স্কুল ছাত্র রাশেদের সঙ্গে দীর্ঘদিন থেকে প্রেমের সম্পর্ক। একপর্যায়ে বন্ধুদের সহযোগিতায় একাধিকবার ইতুর-রাশেদের শারীরিক সম্পর্ক হয়। ফলে ইতু অন্তঃস্বত্বা হয়ে পড়লে প্রেমিক রাশেদ প্রেমের সম্পর্ককে অস্বীকার করে, যা মানতে না পেরে লজ্জায় চিরকুট লিখে আত্মহত্যা করে ইতু। রাতে চিরকুটসহ নিহত তরুণীর লাশ উদ্ধার করে শেরপুর সদর থানা পুলিশ।

চিরকুটে লেখা অনুযায়ী জানা যায়, মৌসুমি, মেঘলা সাজেদা, আজাদ, খুশি, নিশি, শফিক, মোশাররফ ও ময়নালের সহায়তায় ইতু ও রাশেদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এরপর তাদের একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক হয়।

আরো পড়ুন>>>ইউপি ভবন থেকে যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

প্রেমিক রাশেদের কাকা তামজিদসহ তারা সবাই মিলে তার জীবনটা শেষ করে দিয়েছে বলে চিরকুটে উল্লেখ ছিল। তাদেরকে ক্ষমা না করার জন্য বলা হয়েছে ওই চিরকুটে।

এ ব্যাপারে শেরপুর সদর থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, রাতে আমাদের পুলিশ ইতু নামের ওই মেয়েটির লাশ তাদের বাড়ির একটি ঘর থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করে। এসময় একটি চিরকুটো পাওয়া যায়। লাশ ময়না তদন্তের জন্য শেরপুর জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অভিযোগ সত্য হলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

স্বাআলো/আরবিএ

.

Author