হাসপাতাল থেকে চুরি হওয়া শিশু তাইয়েবা ৮ দিন পর উদ্ধার

নাটোরের গুরুদাসপুর হাসপাতাল থেকে চুরি হওয়ার আট দিন পর দুই মাস বয়সী শিশু তাইয়িব্যাকে উদ্ধার করে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিয়েছে পুলিশ। একইসঙ্গে শিশু চোর এক নারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানিয়েছেন নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, গত ২৩ ডিসেম্বর নাটোরের গুরুদাসপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বহির্বিভাগে মায়ের সাথে চিকিৎসা নিতে গেলে সেখান থেকেই চুরি হয় দুই মাস বয়সী শিশু তাইয়িব্যা। এ ঘটনার শিশুটির বাবা গুরুদাসপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

পুলিশ সুপার বলেন, গত ২৩ তারিখ থেকে শিশু তাইয়িব্যাকে উদ্ধারে তল্লাশি কার্যক্রম শুরু করে পুলিশ। নাটোরের পুলিশ এবং গোয়েন্দাদের চারটি দল যৌথভাবে এই উদ্ধার কর্মকাণ্ডে অংশ নেয়।

পুলিশ জানায়- অভিযোগ পাওয়ার পর তদন্তের অংশ হিসেবে গুরুদাসপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও গুরুদাসপুর থানার সব সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করে বিশ্লেষণ করা হয়। সেখান থেকে পাওয়া তথ্য এবং আধুনিক প্রযুক্তির মাধ্যমে পাওয়া তথ্য যাচাই-বাছাই করে অভিযান চালায় পুলিশ।

আরো পড়ুন>>>গভীর রাতে মায়ের কোল থেকে শিশু চুরি

আজ বৃহস্পতিবার ভোর রাতে অভিযান চালিয়ে নাটোর জেলার বড়াইগ্রাম থানার কালিকাপুর গ্রাম থেকে শিশু তাইয়িব্যাকে উদ্ধার করে পুলিশ।

সংবাদ সম্মেলনে আরও জানানো হয়- যে নারী শিশু তাইয়িব্যাকে চুরি করেছে তারও একটা বাচ্চা হয়েছিল দুই মাস আগে। কিন্তু বাচ্চা হওয়া নিয়ে স্বামীর সঙ্গে অশান্তির কারণে সে তার নিজের বাচ্চাকে অন্য আরেকটি পরিবারের কাছে দত্তক দেয়।

পরে আবার তার সন্তান না থাকার কারণে ওই নারীর স্বামী ফের অশান্তি সৃষ্টি। এই অশান্তির মুখে পড়েই সে হাসপাতালে গিয়ে শিশু তাইয়িব্যাকে চুরি করেছে বলে জানায় পুলিশ।

পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা জানান, পুলিশের কাছে বাচ্চা চুরির কথা স্বীকার করেছে ওই নারী। পরে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

স্বাআলো/আরবিএ

.

Author