দামুড়হুদায় সরকারি জমি থেকে দোকান ঘর উচ্ছেদ

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার সীমান্তবর্তী কার্পাসডাঙ্গায় সরকারি খাঁস জমি থেকে ৩০টি ঘর উচ্ছেদ করে দখল মুক্ত করলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার।

আজ বুধবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নির্বাহী ম্যাজিট্রেট দিলারা রহমান উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেন। বেশ কয়েক দিন ধরে স্থানীয় নেতাসহ বিভিন্ন ব্যবসায়ীরা উক্ত খাস জমি দখল করে ৩০টি দোকান ঘর নির্মাণ করে।

পরে গত বুধবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জানতে পেরে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুদিত্ব কুমার সিংহকে নিয়ে ঘটনা স্থলে যান।

এসময় তিনি সকলকে সরকারি জমি থেকে তাদের নির্মানাধীন ঘর সরিয়ে নেয়ার জন্য দুই দিন সময় বেঁধে দেয়।

এই সময়ের মধ্যে ঘর সরিয়ে না নিলে আজ বুধবার দুপুর ১টার দিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিট্রেট দিলারা রহমান সকল ঘর উচ্ছেদ করেন।

আরো পড়ুন>>>চুয়াডাঙ্গায় গৃহহীনদের জন্য নিমাণকৃত ঘর পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের পরিচালক

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিট্রেট দিলারা রহমান বলেন, উপজেলার সীমান্তবর্তী কার্পাসডাঙ্গা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের পিছনে ১৪ একর খাঁস জমি রয়েছে। এরমধ্যে ৬০ শতক জমিতে গত কয়েক দিন ধরে অবৈধ ভাবে জমি দখল করে টিনের বেড়া ও টিনের ছাউনি দিয়ে প্রায় ৩০টি ঘর নির্মাণ করা হয়। গত (৬ ডিসেম্বর) দখলদারীদের উক্ত স্থান থেকে সকল ঘর গত শনিবারের মধ্যে সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়।

অদ্যবধি তারা ঘর সরিয়ে না নিলে, আজ বুধবার দুপুরে উক্ত স্থানে নতুন নির্মাণাধীন সকল দোকান ঘর উচ্ছেদ করা হয়। এই উচ্ছেদ কাজে সহায়তা করেন, কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়ন ভুমি অফিসার আশরাফুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী অফিসের পেশকার জিহন আলি, নির্বাহী অফিসের রফিকুল ইসলাম ও কার্পাসডাঙ্গা ফাড়ি পুলিশ।

স্বাআলো/আরবিএ