ইংল্যান্ডকে টপকে অস্ট্রেলিয়ার পরই বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস নিয়ে ভীতির আনুষ্ঠানিক কারণ হোক, ব্যক্তিগত ব্যস্ততাই হোক কিংবা ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টি লিগে খেলার ‘ওপেন সিক্রেট’ হোক—কারণ যা-ই হোক, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ভগ্নশক্তির দল নিয়েই ওয়ানডে সিরিজ খেলতে এসেছে বাংলাদেশে। তাতে তামিম ইকবালদের জন্য সুবর্ণ একটা সুযোগ তো এসেছিলো, তিন ম্যাচই জিতে ওয়ানডের সুপার লিগে শুরুটা ভালো করার। সেটিতে বাংলাদেশ কোনো নড়চড় হতে দিলো না।

তিন ম্যাচের তিনটিই জিতে বাংলাদেশের পয়েন্ট এখন ৩০। পাকিস্তান, ইংল্যান্ডের মতো দলকে টপকে ওয়ানডের সুপার লিগের পয়েন্ট তালিকায় এখন বাংলাদেশ উঠে গেছে ২ নম্বরে। ইংল্যান্ডেরও পয়েন্ট বাংলাদেশের সমান ৩০ ই, তবে নেট রানরেটে এগিয়ে বাংলাদেশ আছে ২ নম্বরে। ইংল্যান্ড ৩ নম্বরে, ২০ পয়েন্ট নিয়ে পাকিস্তান ৪ নম্বরে। ৪০ পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে অস্ট্রেলিয়া।

সুপার লিগের অংশ বলেই এখন আর কোনো ম্যাচই অন্য ম্যাচের চেয়ে ছোট নয়। এই সুপার লিগই যে ঠিক করে দেবে কারা ভারতে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপে সরাসরি খেলবে, আর কারা খেলবে না। করোনার কারণে শুরুটা বিলম্বিত হলেও গত ৩০ জুলাই ইংল্যান্ড ও আয়ারল্যান্ডের ম্যাচ দিয়ে শুরু হয়েছে ওয়ানডে সুপার লিগ।

এখান থেকে কীভাবে বিশ্বকাপের পথ ঠিক হবে? আইসিসির পূর্ণ সদস্য ১২টি দল আর ২০১৫-১৭ আইসিসি ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট লিগ চ্যাম্পিয়নশিপ জিতে এই টুর্নামেন্টে খেলার যোগ্যতা পাওয়া নেদারল্যান্ডস—এই ১৩ দল নিয়ে হচ্ছে ওয়ানডে সুপার লিগ। এখানে প্রতিটি দল অন্য ১২ দলের মধ্যে ৮টির সঙ্গে ১টি করে ওয়ানডে সিরিজ খেলবে। এর মধ্যে চারটি সিরিজ খেলবে নিজেদের মাটিতে, চারটি প্রতিপক্ষের মাটিতে। প্রতিটি সিরিজ হবে তিন ওয়ানডের।

ক্যারিবীয়দের ধোলাই করে ছাড়লো টাইগাররা

২০২৩ বিশ্বকাপের স্বাগতিক বলে ভারতের বিশ্বকাপে জায়গা নিশ্চিত। আর বাকিদের মধ্যে এই লিগের পয়েন্ট তালিকায় সেরা সাত দল সরাসরি যাবে বিশ্বকাপে। বাকি পাঁচ দল খেলবে প্লে-অফ, যেখানে তাদের সঙ্গে যুক্ত হবে আইসিসির পাঁচটি সহযোগী সদস্যদেশও। সেই ১০ দলের প্লে-অফ থেকে সেরা দুই দল সুযোগ পাবে বিশ্বকাপে।

বিশ্বকাপের হিসাব জড়িত বলেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ কেমন দল নিয়ে এসেছে, সেদিকে ভ্রুক্ষেপ না করে বাংলাদেশকে সর্বোচ্চ পয়েন্ট ও ভালো রানরেট নিশ্চিত করতে হতো এই সিরিজ থেকে। তামিম ইকবালের পূর্ণকালীন অধিনায়কত্বে অভিষেকের সেই সিরিজে কাজটা দারুণভাবেই করেছে বাংলাদেশ। রানরেটের হিসাবে ওয়ানডে লিগে এই মুহূর্তে সবার চেয়ে এগিয়ে তামিম-সাকিবরাই!

আরেকটা তৃপ্তিও থাকবে এই সিরিজে। এখন পর্যন্ত ওয়ানডে লিগে ১৩ দলের মধ্যে অন্তত ১টি করে ম্যাচ খেলেছে—এমন দলের সংখ্যা ৯টি। শুধু নেদারল্যান্ডস, শ্রীলঙ্কা, নিউজিল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকা এখনো কোনো ম্যাচ খেলেনি। ম্যাচ খেলেছে, এমন ৯ দলের মধ্যে এখন পর্যন্ত পূর্ণ পয়েন্ট পেয়েছে শুধু বাংলাদেশ আর ৫ নম্বরে থাকা আফগানিস্তানই (২০)।

শীর্ষে থাকা অস্ট্রেলিয়া ৪০ পয়েন্ট পেয়েছে ৬ ম্যাচ খেলে। ৩ থাকা ইংল্যান্ডও খেলে ফেলেছে ৬ ম্যাচ। চারে থাকা পাকিস্তানের ২০ পয়েন্ট এসেছে ৩ ম্যাচ থেকে। ৬ নম্বরে জিম্বাবুয়ে, তারা ১০ পয়েন্ট পেয়েছে ৩ ম্যাচে। সাতে থাকা আয়ারল্যান্ড ৫ ম্যাচের ৪টিই হেরেছে। আটে ভারত, ৩ ম্যাচে ১ জয় তাদের। কিন্তু ওভাররেটের কারণে এক পয়েন্ট খুইয়েছে তারা। আর শূন্য হাতে ৯ নম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

স্বাআলো/এসএ