অভিনয়ের কারিগর হুমায়ুন ফরীদির মৃত্যুবার্ষিকী আজ

বরেণ্য অভিনেতা ও অভিনয় কারিগর হুমায়ুন ফরীদির নবম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ২০১২ সালের আজকের এই দিনে তিনি না ফেরার দেশে চলে যান। ফরীদি চলচ্চিত্র, মঞ্চ ও টেলিভিশনে সমান জনপ্রিয় ছিলেন।

১৯৫২ সালের ২৯ মে ঢাকার নারিন্দায় হুমায়ুন ফরীদির জন্ম। তার বাবার নাম এটিএম নূরুল ইসলাম ও মা বেগম ফরিদা ইসলাম। ইউনাইটেড ইসলামিয়া গভর্নমেন্ট হাই স্কুলের ছাত্র ছিলেন তিনি। মাধ্যমিক স্তর উত্তীর্ণের পর চাঁদপুর সরকারি কলেজে পড়াশোনা করেন। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক (সম্মান) অর্থনীতি বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত নাট্য উৎসবে তিনি অন্যতম সংগঠক ছিলেন। মূলত এ উৎসবের মাধ্যমে তিনি নাট্যাঙ্গনে পরিচিত মুখ হয়ে উঠেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রাবস্থাতেই তিনি ঢাকা থিয়েটারের সদস্যপদ লাভ করেন। নব্বইয়ের দশকে হুমায়ুন ফরীদি চলচ্চিত্র জগতে প্রবেশ করেন।

আরো পড়ুন>>> চলে গেলেন অভিনেতা মজিবুর রহমান দিলু

নাট্যাচার্য সেলিম আল দীনের ঘনিষ্ঠজন ছিলেন হুমায়ুন ফরীদি। সেলিম আল দীন রচিত ‘কেরামত মঙ্গল’, ‘কিত্তনখোলা’, ‘মুনতাসির ফ্যান্টাসি’, ‘হাত হদাই’-এর মতো ধ্রুপদি নাটকে অভিনয় করে দর্শকনন্দিত হন তিনি।

এ ছাড়া টিভি নাটকে ‘নিখোঁজ সংবাদ’-এ প্রথম অভিনয় করেন হুমায়ুন ফরীদি। তবে ‘সংশপ্তক’ ধারাবাহিক নাটকে ‘কান কাটা রমজান’ চরিত্রে অভিনয় করে নিজেকে নিয়ে যান অন্য উচ্চতায়। হুমায়ুন ফরীদির চলচ্চিত্রে প্রথম অভিনয় ‘হুলিয়া’য়। এক দশকের বেশি সময় ধরে রুপালি পর্দায় অভিনয় করেন। অভিনয়ের জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারসহ বহু পুরস্কারে ভূষিত হন তিনি।

তার মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আজ নানা আয়োজন করেছে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠন।

স্বাআলো/আরবিএ