আজিমপুরে চির শয়ানে সৈয়দ আবুল মকসুদ

খ্যাতিমান কলামিস্ট, গবেষক, প্রাবন্ধিক, সাংবাদিক ও লেখক সৈয়দ আবুল মকসুদকে আজিমপুর গোরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

বুধবার বাদ আসর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে তার সর্বশেষ জানাজা সম্পন্ন হয়। জানাজায় ইমামতি করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ইমাম ড. সৈয়দ মুহাম্মদ এমদাদ উদ্দিন।

এরপর সৈয়দ আবুল মকসুদের মেয়ে জিহাদ মকসুদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে পৌঁছান। সেখানে আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে মাগরিবের নামাজের পর আজিমপুর কবরস্থানে তার মরদেহ দাফন করা হবে।

এর আগে বুধবার বিকাল ৩টার দিকে তার মরদেহ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আনা হয়। সেখানে কৃষি মন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বাংলাদেশের পতাকা দিয়ে তাকে আচ্ছাদিত করেন। তারপর থেকে সর্বস্তরের মানুষ শ্রদ্ধা নিবেদন শুরু করে।

এ সময় সৈয়দ আবুল মকসুদের প্রতি সম্মান জানিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ, সিপিবি, বাংলাদেশ ওয়াকার্স পার্টি, ক্ষেত মজুর সমিতি, ভাসানী পরিষদ, ঐক্য ন্যাপ, বাসদ, ছাত্র ফেডারেশন, বাংলা একাডেমি, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, গণসংহতি আন্দোলনসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক এবং ব্যক্তি পর্যায়ের সর্বস্তরের মানুষ।

সৈয়দ আবুল মকসুদ গতকাল সন্ধ্যায় রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। মঙ্গলবার রাতে তার প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়, দুপুর আড়াইটায় তার মরদেহ স্কয়ার হাসপাতাল থেকে জাতীয় প্রেস ক্লাবে নেয়া হয়। সেখানে সাংবাদিকরা শ্রদ্ধা জানানোর পর দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। পরে তার মরদেহ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নেয়া হয় সেখানে নাগরিকদের শ্রদ্ধা জানানো শেষে বাদ আছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে তৃতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর তাকে আজিমপুর কবরস্থানে দাফন করা হয়।

স্বাআলো/এসএ