দ্রুতই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হবে: যুগ্মসচিব মূকেশ চন্দ্র

দ্রুতই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব মূকেশ চন্দ্র বিশ্বাস।

বুধবার যশোর সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের হলরুমে শিক্ষকদের সাথে ‘করোনাকালীন শিক্ষা ব্যবস্থার বাস্তবতা ও করণীয়’ মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন তিনি।

মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব মূকেশ চন্দ্র বিশ্বাস।

বিশেষ অতিথি ছিলেন, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের (মাধ্যমিক শাখা) পরিচালক প্রফেসর মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন ও ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের কলেজ পরিদর্শক মোহাম্মদ আবুল সুনছুর ভূঁঞা।

পুলিশ গেলো জলকামান নিয়ে, শিক্ষার্থীরা দিলো গোলাপ

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের খুলনা অঞ্চলের উপ-পরিচালক নিভা রানী পাঠকের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন যশোর জেলা শিক্ষা অফিসার এ এস এম আব্দুল খালেক, যশোর সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক লায়লা শিরিন সুলতানা ও ঝিকরগাছা বিএম হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সামাদ।

এ সময় যশোরের ৮ উপজেলার বিভিন্ন স্কুল ও মাদরাসার প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।

মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি বলেন, দ্রুতই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হবে। শিক্ষকদের প্রস্তুতি নিতে হবে পূর্বের মতো পরিবেশ তৈরি করার। দীর্ঘ সময় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় অনেক শিক্ষার্থী বিভিন্ন পেশার সাথে জড়িয়ে পড়েছে। ওইসব শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফিরিয়ে আনতে শিক্ষকদের সবচেয়ে বেশি ভূমিকা পালন করতে হবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সচল করতে শিক্ষকদের সবচেয়ে বেশি অবদান থাকবে। নিজের সন্তানের মতো মনে করে যত্ন সহকারে সহকারে পাঠদান করাতে হবে। শিক্ষার্থীদের বিরাট ক্ষতি পূরণের দায়িত্ব শিক্ষকদের নেয়ার আহবান জানান তিনি। মাত্র তিন থেকে চার মাস নেয়ার পরই এসএসসি পরীক্ষা নেয়ার হবে। এই অল্প সময়ের মধ্যে শিক্ষার্থীদের উপযোগী হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।

তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকার শিক্ষাবান্ধব সরকার। শিক্ষার উন্নয়নে শেখ হাসিনা সরকারের বিরল ভূমিকা রয়েছে। স্বল্প সময়ের মধ্যে এমপিও নীতিমালা-২০২১ বাস্তবায়ন হবে। সেখানে শিক্ষকদের চাকরি, বেতন-ভাতা ও জনবল কাঠামো সংক্রান্ত সব সমস্যার সমাধান দেয়া হবে। শিক্ষকদের হয়রানি বন্ধ হবে। দুর্ভোগে পড়তে হবে না।

স্বাআলো/এসএ