গবেষণা করতে গিয়ে মুসলমান হলেন কানাডিয়ান শিক্ষিকা

কানাডা বংশোদ্ভূত ইংরেজি শিক্ষিকা জেনি মোলেন্ডিক ডিভলিলি। শিশুদের জন্য অনলাইনে ইসলাম শিক্ষা প্রসারে কাজ করছেন তিনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মাত্র পাঁচজন সন্তান নিয়ে শিশুদের শিক্ষা প্রদান করছেন।

ডেইলি সাবাহর এক প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে, জেনি ভাষাতত্ত্ব ও সাংকেতিক ভাষা নিয়ে গবেষণার কাজ করতে গিয়ে ইসলামের সঙ্গে পরিচিত হয়। দীর্ঘ গবেষণার পর ২০০৬ সালে ইসলাম গ্রহণ করে মুসলিম হোন এই ইংরেজি শিক্ষিকা। মুসলিম হওয়ার পর দশ বছর ধরে তুরস্কের ইস্তাম্বুল নগরীতে বাস করছেন এবং ইংরেজি ভাষা শেখাচ্ছেন।

করোনার অভাবনীয় সাফল্য পাওয়া টিকার পেছনে এই মুসলিম দম্পতি

তিনি বলেন, মুসলিমদের সম্পর্কে কিছুই জানা ছিলো না আমার। ইসলাম নিয়ে পড়াশোনা করতে থাকি। মসজিদে সাংকেতিক (ইশারা) ভাষা অনুবাদের কাজ করতাম। তাই ইসলাম সম্পর্কে পড়াশোনা শুরু করি। দীর্ঘ পড়াশোনায় সকল প্রশ্নের জবাব ইসলামে পেয়ে যাই। পরে ২০০৬ সালের ১৪ মে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করি। আর এটি আমার জীবনের সর্বোত্তম সিদ্ধান্ত বলে মনে করি। কেননা আমার কাছে উপলব্ধি হয় ইসলামই সর্বোত্তম জীবন ব্যবস্থা।

কানাডার একটি খ্রিস্টান পরিবারে জেনি মোলেন্ডিক ডিভলিলির জন্ম। বাবা ছিলেন পুলিশ অফিসার ও মা ছিলেন নার্স। ভাষাতত্ত্বে অনার্স পড়াকালীন ও আমেরিকার সাংকেতিক ভাষার অনুবাদকালে বিভিন্ন বিষয়ে অনুসন্ধান করতে হয় তাকে। পরে ইসলাম গ্রহণ করেন। ব্যক্তি জীবনে ২০১২ সালে তুরস্কের ডিভলিলির সঙ্গে পরিচিত হওয়ার পর তার সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন এবং বিয়ের দিন থেকে হিজাব পরিধান করেন কানাডিয়ান এই ইংরেজি শিক্ষিকা।

স্বাআলো/এস