যশোরে দশম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা, মামলা করায় প্রাণনাশের হুমকি

যশোর: যশোরের সদর উপজেলার শাহাবাসপুর গ্রামে দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করার অভিযোগ উঠেছে। ওই ছাত্রীর মা কোতয়ালি মডেল থানায় একই গ্রামের সোহাগ আলীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগে ওই ছাত্রীর মা জানান, গত বুধবারের দিনের বেলায় তিনি ও তার স্বামী বাড়িতে ছিলেন না। তার মেয়ে দুপুরের খাবার খেয়ে রুমে ঘুমিয়ে ছিলো। ওই অবস্থায় সোহাগ আলী তার রুমে ঢুকে ঘরের দরজা বন্ধ করে দেয়। তারপর দেশীয় অস্ত্র দিয়ে ভয় দেখিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। তার মেয়ে বাঁধা দিলে শরীরের বিভিন্নস্থানে আঘাত করে। মেয়ের চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা এসে দরজা ভেঙ্গে তার মেয়েকে উদ্ধার করে।

ভু্ক্তভোগী পরিবারের অভিযোগ, মামলা করার পর মথুরাপুর গ্রামের বাসিন্দা সোহাগ আলীর আত্মীয় ইউপি সদস্য শাহাজান আলী ওরফে কসাই শাহাজান অভিযোগটি প্রত্যাহার করে দিতে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে। থানায় অভিযোগ করে তার পরিবার এখন চরম নিরাপত্তাহীনতায় পড়ে গেছে। তিনি সুষ্ঠু বিচার পেতে প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

এ বিষয়ে অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সুকুমার কুন্ডু বলেন, এ ধরণের একটি অভিযোগের তদন্ত আমি করেছে। ঘটনাটি সঠিক। আসামিদের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়েছে। বাড়িতে না পাওয়ায় আটক করা সম্ভব হয়নি। অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

ইউপি সদস্য শাহাজান আলী বলেন, আমি ওই ওয়ার্ডের জনপ্রতিনিধি নয়। তবে তারা দু’পক্ষই আমার কাছের মানুষ। মিমাংসা করার উদ্দেশ্যে আমি সেখানে গিয়েছিলাম। ভুক্তভোগী পরিবারকে কোনো হুমকি দিয়নি। এ অভিযোগটি মিথ্যা।

স্বাআলো/এসএ