মোহাম্মদ বিন সালমানের অনুমোদনেই সাংবাদিক খাশোগিকে হত্যা

সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের প্রত্যক্ষ অনুমোদনে সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়েছে।

শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রে বাইডেন প্রশাসনের প্রকাশিত প্রতিবেদনে এ দাবি করা হয়েছে। খবর বিবিসি, দ্য গার্ডিয়ান, সিএনএন।

যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের ওই প্রতিবেদনের উপসংহারে বলা হয়েছে, আমরা মূল্যায়ন করছি যে, সৌদি যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমান তুরস্কের রাজধানী ইস্তাম্বুলে জামাল খাশোগিকে পাকড়াও করা বা হত্যার নির্দেশ দিয়েছিলেন।

এদিকে প্রতিবেদন প্রকাশের পর শুক্রবার মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এন্টোনি ব্লিংকেন জানিয়েছেন, ৭৬ জন সৌদি নাগরিকের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

উল্লেখ্য, এই প্রথম মার্কিন সরকার সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ডে জড়িত হিসেবে সৌদির যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের নাম নিলো। খাশোগি হত্যার দুই বছর পর এমন প্রতিবেদন প্রকাশ করল যুক্তরাষ্ট্র।

এর আগে ২০১৮ সালের ২ অক্টোবর তুরস্কের সৌদি দূতাবাসে সাংবাদিক জামাল খাশোগি এক নির্মম হত্যাকাণ্ডের শিকার হোন। সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের কট্টর সমালোচক ছিলেন খাশোগি। জামাল খাশোগি মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্টের নিয়মিত কলামিস্ট ছিলেন।

খাশোগি হত্যার নির্দেশদাতা হিসেবে মোহাম্মদ বিন সালমানের নাম শুরু থেকেই জড়িয়ে ছিলো। তবে সৌদির যুবরাজ এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে তার সম্পৃক্ততার কথা বরাবরই অস্বীকার করে আসছেন। কিন্তু সৌদির শাসক হিসেবে তিনি এই হত্যার দায় এড়াতে পারেন না বলেও স্বীকার করেন। খাশোগি হত্যার দায়ে সৌদির আদালত দেশটির পাঁচ নাগরিককে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছিলেন। পরে খাশোগির পরিবার হত্যাকারীদের মাফ করে দিলে তাদের সাজা কমিয়ে ২০ বছরের কারাদণ্ড করা হয়।

স্বাআলো/এসএ