প্রাক-প্রাথমিক বন্ধ, পঞ্চম-দশম-দ্বাদশে প্রতিদিন ক্লাস

করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতির কারণে একবছরেরও বেশি সময় বন্ধ থাকার পর আগামী ৩০ মার্চ খুলছে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানিয়েছেন, তবে শুরুতেই প্রাক-প্রাথমিকের ক্লাস হবে না।

অন্যদিকে, পঞ্চম শ্রেণি বাদ দিয়ে প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের ক্লাস হবে সপ্তাহে একদিন।

মন্ত্রী জানান, এর বাইরে নবম ও একাদশ শ্রেণির ক্লাস হবে সপ্তাহে দুই দিন। আর পঞ্চম, দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের সপ্তাহের ছয় দিনই ক্লাস করতে হবে। পরবর্তী সময়ে পরিস্থিতির উন্নতি হলে ক্লাসের সংখ্যা বাড়িয়ে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে আনা হবে সব ক্লাসে।

শনিবার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ কক্ষে প্রেস ব্রিফিংয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এসব তথ্য জানিয়েছেন। শিক্ষামন্ত্রীর সভাপতিত্বে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে রাত প্রায় সাড়ে ৮টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত এক আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক থেকে এই সিদ্ধান্ত হয়েছে।

বৈঠকের পর ব্রিফিংয়ে শিক্ষামন্ত্রী জানান, এ বছর রমজান মাসে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ থাকবে না। রোজার মধ্যেও ক্লাস চলবে। ঈদুল ফিতর সামনে রেখে কয়েকদিনের জন্য ছুটি দেওয়া হবে।

শিক্ষামন্ত্রী আরো জানান, আগামী ৩০ মার্চ দেশের প্রাথমিক-মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের সব স্কুল-কলেজ খুলে দেয়া হবে। গুরুত্ব বিবেচনায় প্রাথমিকের পঞ্চম শ্রেণি, মাধ্যমিকের দশম শ্রেণি ও উচ্চ মাধ্যমিকের দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের সপ্তাহের প্রতিদিনই ক্লাস করতে হবে। আর নবম ও একাদশ শ্রেণিতে ক্লাস হবে দুই দিন করে। বাকি ক্লাসের শিক্ষার্থীরা শুরুতে সপ্তাহে একদিন করে ক্লাস করবে।

ব্রিফিংয়ে ডা. দীপু মনি বলেন, ৩০ মার্চের মধ্যে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যিমক পর্যায়ের সব শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীর শতভাগকে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন প্রয়োগের ব্যবস্থা করা হবে। এর আগেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে খোলার পর ক্লাস নেয়ার উপযোগী পরিবেশ তৈরি করতে হবে। স্কুল-কলেজ খুললে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে সবাইকে।

আন্তঃমন্ত্রণালয় এই বৈঠকে কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, তথ্যমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

সরকারের সচিবদের মধ্যে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তাফা কামাল, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা (মাউশি) বিভাগের সচিব মাহবুব হোসেন, স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবারকল্যাণ বিভাগের সচিব আলী নূর এবং স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আব্দুল মান্নান, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব আমিনুল ইসলাম খান এবং মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) কামাল হোসেন।

এছাড়া কোভিড-১৯ বিষয়ক বিষয়ক জাতীয় টেকনিক্যাল পরামর্শক কমিটির প্রধান অধ্যাপক ডা. শহীদুল্লাহ, পুলিশ মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদ, মাধ্যিমক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ গোলাম ফারুক, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এ বি এম খুরশীদ আলমসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন বৈঠকে।

স্বাআলো/এসএ