এমপি শিমুলের ক্যাডার বাহিনীর হামলার শিকার সাংবাদিক তারেক

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলায় পাঁকা ইউনিয়নের পদ্মা ফেরিঘাটের টোল কমানোর দাবিতে ভুক্তভোগীদের মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজনকালে মালেক ও বাহাদুরের নেতৃত্বে লাঠি, রড ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলার ঘটনা ঘটেছে।

আজ সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শিবগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চত্বরে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় মোহনা টেলিভিশনের চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি তারেক রহমান তার ক্যামেরায় ছবি ধারণ করার সময় তাকে মারধর ও ক্যামেরা ছিনিয়ে নেয়ার ঘটনা ঘটে। এতে তিনি আহত হন।

উপজেলার পাঁকা ইউনিয়নের পদ্মা ফেরিঘাটে দীর্ঘদিন ধরে জনসাধারণের কাছে অতিরিক্ত টোল আদায়ের অভিযোগ রয়েছে। এতে এলাকাবাসী ক্ষিপ্ত হয়ে সোমবার দুপুর ১২টায় উপজেলা পরিষদ চত্বরে মানববন্ধনের আয়োজন করে। হঠাৎ স্থানীয় সংসদ সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদের ক্যাডার বাহিনী মানববন্ধনে উপস্থিত জনসাধারণের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এতে সাংবাদিক তারেক রহমানসহ ৫ জন আহত হন।

আরো পড়ুন>>> নাচোল পৌরসভায় নৌকার বিজয়

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগেরসহ সভাপতি মেসবাহুল হক জানান, পাঁকা পদ্মা ফেরিঘাটের ইজারাদার দীর্ঘদিন ধরে সরকারি বিধি লংঘন করে অতিরিক্ত করে টোল আদায় করে আসছে। বিষয়টি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করার পরও কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। বিষয়টি সুরাহার জন্য পাঁকা ইউনিয়নের ভুক্তভোগিরা উপজেলা চত্বরে মানববন্ধন শুরুর প্রাক্কালে এমপি শিমুলের লাঠিয়াল বাহিনীর প্রধান মালেকের নেতৃত্বে ২০-২৫ জনের একটি দল মানববন্ধনকারীদের উপর হামলা চালায়। পাঁকা ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ নেতা লিটন জানান, উস্কানি ছাড়ায় এই ধরনের হামলা ন্যাক্কার জনক। তিনি হামলাকারীদের বিচার দাবি করেছেন।

এ বিষয়ে সংসদ সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল বলেন, আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। ব্যানারে আমার নাম ব্যবহার করা হয়েছে, যা উদ্দেশ্য প্রণোদিত। তিনি আরো বলেন, টোল কমানোর মালিক আমি নয়, অথচ রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য একটি মহল তার নামে অসত্য এবং বিভ্রান্তিমূলকভাবে নাম ব্যবহার ও তাকে হেয় করার জন্য এ মানববন্ধন করে। এদিকে সাংবাদিক তারেক রহমানের উপর হামলার ঘটনায় সিটি প্রেসক্লাব, চাঁপাইনবাবগঞ্জের সভাপতি সাজেদুল সাজু ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল আলম তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

স্বাআলো/আরবিএ

.

Author