এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জয় ওয়েস্ট ইন্ডিজের

তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জয় করে নিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। আগে ব্যাটিং করে গুণাথিলাকা-চান্দিমালদের ব্যাটে শ্রীলঙ্কা সংগ্রহ করে ৮ উইকেটে ২৭৩ রান। জবাবে এভিন লুইসের সেঞ্চুরিতে শেষ ওভারে ৫ উইকেটের জয় ছিনিয়ে নেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

অ্যান্টিগাতে টস জিতে শ্রীলঙ্কাকে আগে ব্যাটিং করার আমন্ত্রণ জানায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ম্যাচের শুরুতেই সাফল্য পান স্বাগতিকরা। আলজারি জোসেফ সাজঘরের পথ দেখান দিমুথ করুণারত্নে (১) ও পাথুম নিশাঙ্কাকে (১০)। আকিল হোসেন শিকার করেন ওসাদা ফার্নান্দোকে (২)। ৫০ রানে ৩টি উইকেট হারিয়ে বসে শ্রীলঙ্কা।

চতুর্থ উইকেটে ১০০ রানের জুটি গড়েন দানুশকা গুণাথিলাকা ও দীনেশ চান্দিমাল। এই দুইজনের ব্যাটে চড়ে বড় স্কোরের স্বপ্ন দেখছিলো শ্রীলঙ্কা। গুণাথিলাকাকে শিকার করে এই জুটি ভাঙেন জেসন মোহাম্মদ। ফেরার আগে গুণিথিলাকার ব্যাট থেকে আসে ৯৬ বলে ৯৬ রান।

আইরিশদের বিপক্ষে উদীয়মান টাইগারদের সিরিজ জয়

চান্দিমাল সাজঘরে ফেরার আগে করেন ৯৮ বলে ৭১ রান। তাকেও আউট করেন জেসন মোহাম্মদ। শেষ দিকে বানিন্দু হাসারাঙ্গার ৩১ বলে ৪৭ রানের ক্যামিওতে শ্রীলঙ্কা পায় ২৭৩ রানের পুঁজি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে জেসন মোহাম্মদ ৩টি ও জোসেফ ২টি উইকেট পান।

২৭৪ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিং করতে নেমে ওয়েস্ট ইন্ডিজের উদ্বোধনী জুটি আজকেও মূল কাজটা করে ফেলেন। এভিন লুইস ও শাই হোপ ৩৭ ওভার ব্যাটিং করে গড়েন ১৯২ রানের জুটি। ১০৩ রান (১২১ বল) করা লুইসকে আউট করে লঙ্কানদের উদযাপনের উপলক্ষ এনে দেন লাকশান সান্দাকান। লুইসের ইনিংসে ছিলো ৮টি চার ও ৪টি ছক্কা। পরের ওভারেই হোপকে শিকার করেন থিসারা পেরেরা। হোপের ব্যাট থেকে আসে ১০৮ বলে ৮৪ রান।

ফাইনালের রোমাঞ্চকর জয়ে স্বর্ণ জিতলেন সালমা-জাহানারারা

এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকলেও ২ বল হাতে রেখে ৫ উইকেটের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এই জয়ে তারা সিরিজও জিতে নিলো ২-০ ব্যবধানে। সিরিজের শেষ ম্যাচটি ১৪ মার্চ।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৫ উইকেটে জয়ী।

স্বাআলো/এস

.