হঠাৎ আলোচনায় তারেকের স্ত্রী জোবায়দা

হঠাৎ করে আলোচনায় তারেক রহমানের স্ত্রী জোবায়দা রহমান। হাইকোর্ট যাকে ৪ বছর আগে আত্মসমর্পণ করতে বলেছিলেন ৮ সপ্তাহের মধ্যে সেই তিনি আইনজীবীর মাধ্যমে আপিল করে মামলাটি স্থগিত চেয়েছেন। দুঘণ্টার দীর্ঘ শুনানি শেষে সিদ্ধান্তে আসতে না পেরে আপিল বিভাগ জানালেন এ বিষয়ে আগামী বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) আদেশ দেয়া হবে।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগ বৃহস্পতিবার এ আদেশের দিন ধার্য করেন। জোবায়দা রহমানের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এ জে মোহাম্মদ আলী। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান।

জ্ঞাত আয় বহির্ভূতভাবে ৪ কোটি ৮১ লাখ ৫৩ হাজার ৫৬১ টাকার সম্পদ অর্জন ও সম্পদের তথ্য গোপন করার অভিযোগে তারেক রহমান, তার স্ত্রী জোবায়দা রহমান ও শাশুড়ি সৈয়দা ইকবাল মান্দ বানুর বিরুদ্ধে ২০০৭ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর রাজধানীর কাফরুল থানায় মামলা করে দুদক। মামলায় তারেক রহমানকে অবৈধভাবে সম্পদ অর্জন ও সম্পদের তথ্য গোপনে সহযোগিতার অভিযোগ আনা হয় জোবায়দা রহমান ও সৈয়দা ইকবাল মান্দ বানুর বিরুদ্ধে। এ মামলায় ২০০৮ সালের ৩১ মার্চ দুদক অভিযোগপত্র দেয়। পরে জোবায়দার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্ট ওই বছরের ৮ এপ্রিল তার বিরুদ্ধে এ মামলার কার্যক্রম দুই মাসের জন্য স্থগিত করেন এবং মামলা কেন বাতিল করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন। এ রুলের ওপর শুনানি শেষে ২০১৭ সালের ১২ এপ্রিল তা খারিজ করে রায় দেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে আট সপ্তাহের মধ্যে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পনের নির্দেশ দেন। এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেন জোবায়দা রহমান। এ আবেদনের ওপর আপিল বিভাগে বৃহস্পতিবার শুনানি সম্পন্ন হয়। এরপর আদালত আগামী ৮ এপ্রিল আদেশের জন্য দিন ধার্য করেছেন।

জোবায়দা রহমান তার স্বামী তারেক রহমানের সঙ্গে ২০০৮ সাল থেকে যুক্তরাজ্যে অবস্থান করছেন। সেখানে তাদের মেয়েও রয়েছে। জোবায়দা রহমানের বিরুদ্ধে মামলার কার্যক্রম ২০০৮ সাল থেকে স্থগিত রয়েছে।

স্বাআলো/এসএ