পশ্চিমবঙ্গ নির্বাচন: অনিয়ম ও প্রাণহানিতে শেষ হলো তৃতীয় দফার ভোট

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলছে। চলতি মাসজুড়ে ৮ দফায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

আগামী ২ মে এই নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করা হবে।

ইতোমধ্যে বিক্ষিপ্ত ঘটনার মধ্য দিয়ে দুই দফায় মোট ৬০ আসনের ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে।

মঙ্গলবার তৃতীয় দফায় দক্ষিণ ২৪ পরগনা, হুগলি, হাওড়া– এই তিন জেলার ৩১টি আসনে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। তৃতীয় দফার নির্বাচনে মোট ভোট পড়েছে ৭৭.৬৮ শতাংশ। ভারতীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে দেখা যায়, বিকেল ৫টা পর্যন্ত হুগলিতে ভোট পড়েছে ৭৯ শতাংশ, হাওড়ায় ৭৮ শতাংশ ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ৭৭ শতাংশ। সবমিলিয়ে এবারের ৩১টি আসনের নির্বাচনে ভোট পড়েছে ৭৭.৬৮ শতাংশ।

ভোট দিয়ে ফেরার সময় নিহত তৃণমূল নেতাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিয়ে খুন করেছে বিজেপি কর্মীরা। নিহতের নাম সুনীল রায় (৭২) গোঘাটে তৃণমূলের বুথ সভাপতি ছিলেন। বিজেপি কর্মীরা তাকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেন বলে অভিযোগ করেছে তৃণমূল। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

এছাড়া তৃতীয় দফার নির্বাচনে নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। এই নির্বাচনে তৃণমূল, বিজেপি, সিপিএম সবাই একে-অপরের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছেন। বিকেল ৫টার দিকে অভিযোগ নিয়ে নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ বাম রাজনীতিবিদরা। তাদের অভিযোগ, কেন্দ্রীয় বাহিনী ও কমিশনের আধিকারিকরা দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ। তাই তারা অভিযুক্ত কর্মীদের সরিয়ে দেয়ার দাবি জানিয়েছেন।

পুলিশ ও কেন্দ্রীয় বাহিনী বিজেপির হয়ে ভোট দিচ্ছে এমন অভিযোগ তুলে দুপুর ১২টার দিকে আরামবাগের তৃণমূল প্রার্থী সুজাতা খাঁ বুথে পৌঁছালে তার ওপর হামলা হয় বলে অভিযোগ করেন তিনি। নারী পুলিশের উপস্থিতিতে স্থানীয়রা তাকে মারধর করেন বলে জানান। এই ঘটনায় এখন পর্যন্ত পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে বলে জানা যায়। এছাড়াও বিজেপির পক্ষ থেকে বিভিন্ন কেন্দ্রে তৃণমূলের কর্মীরা জাল ভোট দিচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

স্বাআলো/এসএ