একটি বেগুনের ওজন দেড় কেজি

একটি বেগুনের ওজন দেড় কেজি। দেশে বেগুন চাষাবাদে নতুন এক মাত্রা যোগ করলেন পটুয়াখালী আঞ্চলিক উদ্যানতত্ব গবেষণা কেন্দ্রের বিজ্ঞানীরা। বারী বেগুন-১২ জাতটি ইতোমধ্যে সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগ থেকে অনুমোদন পেয়েছে। অন্য বেগুন থেকে আকারে বেশ বড় এই বেগুন সবুজ এবং কালো রং এ পাওয়া যাবে। এই বেগুনের চাষাবাদ ছড়িয়ে দিতে পারলে কৃষি অর্থনীতিতে এটি বড় ভূমিকা রাখবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

আঞ্চলিক উদ্যানতত্ব গবেষনা কেন্দ্রের বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা রেজাউল করিম বলেন, হঠাৎ করে দেখলে ঠিক বোঝার উপায় নেই এটি বেগুন নাকি লাউ। দীর্ঘ পাঁচ বছর গবেষণা করে এই জাতটি উদ্ভাবন করা হয়েছে। প্রতিটি বেগুন আকারে এক থেকে প্রায় দেড় কেজি পর্যন্ত হয়ে থাকে। এই বেগুনে বিচির পরিমাণ অনেকটা কম এবং সবজী নরম হওয়ায় এটি খেতেও অন্য সব বেগুণের থেকে সুস্বাধু। এ ছাড়া ওপেন পলিনেটেড হওয়ায় কৃষকরা উৎপাদন বেগুন থেকেই বীজ সংগ্রহ করতে পারবেন বলেও জানান কৃষি বিজ্ঞানীরা।

প্লাস্টিকের বোতল দিয়ে নির্মিত ব্যতিক্রমী বাড়ি

প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. ইদ্রিস আলী হাওলাদার জানান, বারী বেগুন-১২ এর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেশি হওয়ায় কীটনাশক কম লাগে এবং একর প্রতি ৩৫ থেকে ৪০ টন পর্যন্ত ফলন হয়।

স্বাআলো/এস