রংপুরে গৃহবধুকে হত্যার পর লাশ ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ, শ্বাশুড়ি আটক

রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার পায়রাবন্দে মোসলেমা বেগম আইরিন (২২) নামের এক গৃহবধূকে হত্যার পর তীরের সাথে লাশ ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ উঠেছে। পুলিশ ওই গৃহবধুর লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে।

নিহতের ভাই একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে শ্বাশুড়ি নুরজাহানকে আটক করেছে পুলিশ।

আজ সোমবার ভোরে মিঠাপুকুর উপজেলার পায়রাবন্দ ইউনিয়নের ইসলামপুর ভাঙ্গার পাড় গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ সুত্র জানায়, উপজেলার পায়রাবন্দ ইউনিয়নের ইসলামপুর ভাঙ্গার পাড়ের জীবন ( ২৫) এর সাথে দিনাজপুরের ফুলবাড়ি উপজেলার বুজরুক সমসের নগর গ্রামের মোসলেমা বেগম আইরিনের কয়েক বছর আগে (২২) বিয়ে হয়। জীবন পেশায় একজন রাজমিস্ত্রি। জীবন নিয়মিত জুয়া খেলে টাকা নষ্ট করায় প্রতিবাদ করে আসছিলেন আইরিন। এই নিয়ে প্রায় সময় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া বিবাদ হয়ে আসছিলো।

সোমবার ভোরে গৃহবধূ আইরিন গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে এমন খবর ছড়িয়ে পড়ে। পরে লোকজন খবর পেয়ে সকালে বিছানা থেকে আইরিনের মৃতদেহ উদ্ধার করেন। তবে ঘরের তীরের সাথে ওড়না ঝুলানো ছিলো বলে স্থানীয়রা জানান। দুপুরে আইরিনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায় পুলিশ। এ সময় আইরিন হত্যায় জড়িত সন্দেহে শ্বাশুড়ি নুরজাহান বেগমকে আটক করে পুলিশ। ঘটনার পর থেকে লাপাত্তা হয় স্বামী জীবন মিয়া। নিহতের স্বজনদের অভিযোগ, আইরিনকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। তারা জড়িতদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবি করেন।

আল্লামা শফীর মৃত্যু: হেফাজতের ৪৩ জনের নামসহ পিআইবির প্রতিবেদন

এ ঘটনায় আইরিনের বড় ভাই মুঞ্জরুল মিঠাপুকুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মিঠাপুকুর থানার এসআই আবদুল ওয়াহাব জানান, ময়না তদন্ত শেষে প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে। তবে নিহতের স্বামী জীবন পলাতক থাকলেও তার মা নুজাহান বেগমকে আটক করা হয়েছে।

স্বাআলো/আরবিএ