যশোরে ইনজেকশন পুশ করে পাঁচটি গরু মেরে ফেলার অভিযোগ

বেনাপোল: মানুষ শত্রুতা করে পুকুরে মাছের ঘেরে বিষ প্রয়োগ করে, ক্ষেতের জমির ফসল নষ্ট করে গাছ কাটে। এবার ব্যতিক্রম শত্রুতা করে গরুর খামারে বিষযুক্ত ইনজেকশন পুশ করে ৫টি গরু মেরে ফেলার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

যশোরের বেনাপোল পোর্ট থানার পুটখালী গ্রামে খোকন শেখের গরুর খামারে গত রবিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।

প্রায় সাড়ে ৭ লাখ টাকার ৩টি ফ্রিজিয়াম দুধ ওয়ালা গাভি ও ২টির পেটে বাচ্চা গাভি বিষ প্রয়োগ করে মেরে ফেলা হয়েছে।

তবে কারা এই গরুর খামারে বিষ প্রয়োগ করেছে তা খামারী খোকন বলতে পারেনি। এছাড়া ওই খামারের আরো দুটি গরু মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। সোমবার সকালে সরেজমিনে যেয়ে দেখা যায় ৫টি বিশালাকৃতির গরু মৃত্যু দেহ নিয়ে খামারে পড়ে আছে।

বেনাপোল পোর্ট থানার পুটখালী গ্রামের নুর আলী শেখের ছেলে খামার ব্যবসায়ী খোকন শেখ কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, আমার সাথে কারো দ্বন্দ্ব নেই। বিনা কারণে আমার খামারে কে বা কারা প্রবেশ করে ইনজেকশন পুশ করে গরুগুলি মেরে ফেলেছে।

তিনি সরকারের কাছে ক্ষতিপূরণ দাবি করেন।

খোকন আরো বলেন, আমার ওপর যদি কারো রাগ থাকে সে আমাকে শাস্তি দিক। কিন্তু এভাবে আমার সব স্বপ্ন বিলিন করে দিলো কেনো? আমি পরিশ্রম করে সন্তানের মতো গরুগুলো লালন পালন করি একটু ভালোভাবে বাঁচার আশায়।

যশোরে মোটরসাইকেল পাচার চক্রের ছয় সদস্য গ্রেফতার

তার গরুর মূল্য সাড়ে ৭ লাখ টাকা বলে দাবি করেন।

এ ব্যপারে খোকন শেখ শার্শা নির্বাহী অফিসারকে বিষয়টি অবহিত করেছেন।

একই গ্রামের খামার ব্যবসায়ী শরিফুল ইসলাম বলেন, এরকম গরুর মৃত্যু কখনো দেখিনি। তাছাড়া গরুগুলো সুস্থ ও সবল। হঠাৎ গরুগুলো মৃত্যুর কোলে ঢলিয়ে পড়ে। এর সঠিক তদন্ত হওয়া প্রয়োজন।

শার্শা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলীফ রেজা বলেন, আমার কাছে ক্ষতিপূরণ দাবি করা হয়েছে। আর আমি তাদের বলেছি যদি কেউ শত্রুতামূলক গরুগুলো মেরে থাকে তবে থানায় অভিযোগ দিতে।

বেনাপোল পোর্ট থানায় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে থানায় কোনো অভিযোগ দায়ের করা হয়নি।

স্বাআলো/এসএ